একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৬০

সংখ্যা: ২১৯তম সংখ্যা | বিভাগ:

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার স্মরণে-

একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৬০

(পূর্ব প্রকাশিতের পর)

দীর্ঘদিন নিখোঁজ থাকা একজন ছেলের সুস্থ অবস্থায় সন্ধান লাভ

সহজ-সরল মানুষের আন্তরিক বিশ্বাসে কোন খাদ থাকেনা। যাপিত জীবনের অকৃত্রিমতায় অন্যের দেয়া আশ্বাসে তারা বিশ্বাসী থাকে। নিরুদ্বিগ্ন থাকে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই চিন্তা-চেতনার কোন গভীরতা না থাকলেও জটিলতা ও কুটিলতা তাদের জীবনকে কলুষিত করে না। সাধারণত অল্পে তাদের তুষ্টি এবং অকপটতায় তাদের প্রশান্তি। তাদের প্রত্যাশা ও প্রাপ্তিতে তেমন ফারাক নেই। অনুভব ও বিশ্বাসে যখন তখন তাদের ভাঙ্গন ধরে না। তাই পরম হিতৈষী মুনিব ওলীয়ে মাদারজাদ, আওলাদুর রসূল, মুসতাজাবুদ দাওয়াত, সাইয়্যিদুনা হযরত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার যবান মুবারক-এ ছেলের ফিরে আসার কথা শুনে পুত্র শোকে এতদিনের যন্ত্রণাকাতর মুহম্মদ আব্দুর রশীদ এখন অনেকাংশেই দুর্ভাবনা ও ব্যথাভার মুক্ত। কাজে-কর্মে, দায়িত্ব পালনে, আচার-আচরণে উৎফুল্লতা যোগ হয়েছে। বিমর্ষতা দূর হয়েছে।

সাইয়্যিদুনা হযরত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি মুহম্মদ আব্দুর রশীদকে বলেছেন: “তোমার ছেলে বেশ কিছুদিন ধরে থাকা-খাওয়ার বিনিময়ে এক দোকানে কাজ করছে। ভালো আছে। নিরাপদে আছে। চিন্তার কোন কারণ নেই। অল্প ক’দিনের মধ্যেই ছেলে তোমার কাছে ফিরে আসবে।” ছেলে কোন এক দোকানে কাজ করছে, ভালো আছে এবং অচিরেই সে ফিরে আসবে, এসব বিষয় সাইয়্যিদুনা হযরত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি কিভাবে জানেন কিংবা আদৌ জানেন কিনা, মুহম্মদ আব্দুর রশীদের তা’ একবারও মনে হয়নি।

মনে না হওয়ার কারণ হলো ওলীআল্লাহ কাকে বলে তা’ তিনি জানেন না। কারামত বুঝেন না। তথাকথিত আলিম ও বিদ্বানরাই তো মাহবুব ওলীআল্লাহ উনাদেরকে চিনেনা, মানেনা। একান্ত সহজ ও সরল মানুষ মুহম্মদ আব্দুর রশীদ তিনি সাইয়্যিদুনা হযরত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনাকে চিনতে যাবেন কেন? চিনতে পারবেনই বা কেন? দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতায় তিনি শুধু জানেন, সাইয়্যিদুনা হযরত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি যখন যা বলেন, তা-ই হয়। কোন অন্যথা হয় না। এ কারণে হারানো ছেলেকে ফিরে পাবার আশ্বাসে তিনি পরম ইতমিনান।

ওলীআল্লাহ উনাদের উপর তথাকথিত বিজ্ঞজন ও ধর্মব্যবসায়ী নিকৃষ্ট দুনিয়াদার আলিমদের অবিশ্বাস এবং মুহম্মদ আব্দুর রশীদ-এর আক্বীদা ও সরল বিশ্বাসে কত দুস্তর ব্যবধান! ইতোমধ্যে ক’দিন পার হয়ে গেছে। এর মধ্যে বাক সংযমী মুহম্মদ আব্দুর রশীদ একবারও এ বিষয়ে আর কিছু বলেননি। কিছু জানতেও চাননি। বিশ্বাসেও কোন ভাঙ্গন ধরেনি। কারণ তিনি জানেন, সাইয়্যিদুনা হযরত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি যখন বলেছেন, ছেলে ফিরে আসবেই ইনশাআল্লাহ। যন্ত্রণাদগ্ধ পিতা হারানো পুত্রকে ফিরে পাবার উন্মুখ প্রত্যাশায় এখন কেবল কষ্টের প্রহর গুণছেন।

মুসতাজাবুদ দা’ওয়াত, ওলীয়ে মাদারজাদ, আওলাদুর রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি মহান আল্লাহ পাক সুবহানাহূ ওয়া তায়ালা এবং উনার প্রিয়তম হাবীব নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের মত মুবারক ও পথ মুবারক উনার সঙ্গে আপন মত ও পথ পরিপূর্ণরূপে মিলিয়ে দিয়েছেন। উনারা যা চান, তিনিও তাই চান। কাজেই উনার দুআ’ নির্ঘাত কবুল হয়। উনার দুআ’ ও চাওয়ার প্রেক্ষিতে মহান আল্লাহ পাক সুবহানাহূ ওয়া তা’য়ালা এবং উনার প্রিয়তম হাবীব হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের অপার রহমত ও ইহসানে সহসাই হারানো পুত্র মুহম্মদ ইউসুফ আলীকে ফিরে পাবেন মুহম্মদ আব্দুর রশীদ।

মহা-মিলনজনিত পরম আনন্দে সকল দুঃখ ভুলে যাবেন পিতা-মাতা এবং আত্মীয়-পরিজনেরা। কিন্তু সূক্ষ্মদর্শী ও মাহবুব ওলীআল্লাহ, ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ দা’ওয়াত, আফদ্বালুল আওলিয়া, ছাহিবে ইলম ওয়াল হিকাম ওয়াল কাশফ ওয়াল কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছাহিবে ইসমে আ’যম, খাজিনাতুর রহমাহ, ছূফীয়ে বাতিন, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, মিছদাক্বে কুরআন ওয়াল হাদীছ, আওলাদুর রসূল, সাইয়্যিদুনা দাদা হুযূর ক্বিবলা হযরতুল আল্লামা সাইয়্যিদ মুহম্মদ মুখলিছুর রহমান আলাইহিস সালাম উনার বুযুর্গী, মান, শান, ইজ্জত, ঐতিহ্য, কারামত, মাক্বামত ইত্যাদি বিষয়গুলো মুহম্মদ ইউসুফ আলী, তার পিতা-মাতা এবং আরও অনেকের কাছেই অজ্ঞাত রয়ে যাবে।

হয়তো মুহম্মদ আব্দুর রশীদ আমরণ সাইয়্যিদুনা হযরত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার প্রতি এক ধরনের কৃতজ্ঞ থেকে যাবেন। কিন্তু মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার প্রিয়তম হাবীব নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের সঙ্গে উনার পরম নৈকট্যজনিত কামিয়াবীর শীর্ষ সোপান ও সূক্ষ্মদর্শিতা হাক্বীক্বীভাবে উপলব্ধি তো দূরের কথা, সেসব সম্পর্কে মুহম্মদ আব্দুর রশীদের অন্তরে চিন্তা-ভাবনার উন্মেষও ঘটবে না কোনদিন। (চলবে)

-মুহম্মদ সাদী

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আউলিয়া, ছূফীয়ে বাত্বিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলা উনার দিকে প্রস্থান-১৮৪

পঞ্চদশ হিজরী শতকের মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদুর রসূল, ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার সাইয়্যিদুনা মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার মহা সম্মানিতা আম্মা আওলাদুর রসূল, সাইয়্যিদাতুনা আমাদের- হযরত দাদী হুযূর ক্বিবলা আলাইহাস সালাম (৩৪) উনার সীমাহীন ফাদ্বায়িল-ফদ্বীলত, বুযূর্গী-সম্মান, মান-শান, বৈশিষ্ট্য এবং উনার অনুপম মাক্বাম সম্পর্কে কিঞ্চিৎ আলোকপাত

পঞ্চদশ হিজরী শতকের মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদুর রসূল, ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার সাইয়্যিদুনা মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার মহা সম্মানিতা আম্মা আওলাদুর রসূল, সাইয়্যিদাতুনা আমাদের- হযরত দাদী হুযূর ক্বিবলা আলাইহাস সালাম (৩৩) উনার সীমাহীন ফাদ্বায়িল-ফদ্বীলত, বুযূর্গী-সম্মান, মান-শান, বৈশিষ্ট্য এবং উনার অনুপম মাক্বাম সম্পর্কে কিঞ্চিৎ আলোকপাত

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আউলিয়া, ছূফীয়ে বাত্বিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলা উনার দিকে প্রস্থান-১৮৯