পবিত্র মাহে রমাদ্বান শরীফ এবং উনার প্রাসঙ্গিক আলোচনা

সংখ্যা: ২৪৪তম সংখ্যা | বিভাগ:

পবিত্র মাহে রমাদ্বান শরীফ এবং উনার প্রাসঙ্গিক আলোচনা

-আল্লামা মুফতী সাইয়্যিদ শুয়াইব আহমদ

 

রহমত, বরকত, সাকীনা, মাগফিরাত ও নাজাতের বিশেষ মাস মাহে রমাদ্বান শরীফ। সুবহানাল্লাহ! এ মাসের পরিপূর্ণ নিয়ামতসমূহ বান্দা-বান্দী ও উম্মত যদি হাছিল করতে চায় তাহলে তাদের দায়িত্ব কর্তব্য হচ্ছে এ মাসের যথাযথ সম্মান ও হক্ব আদায় করার নিমিত্তে রোযা রাখা, পাঁচ ওয়াক্ত নামায যথারীতি আদায় করা, অধীনস্তদের কার্যভার লাঘব করে দেয়া, ইফতার করা ও করানো, আহার করানো, তারাবীহ ও তাহাজ্জুদ নামায পড়া, কুরআন শরীফ তিলাওয়াত করা,সাহরী খাওয়া, শেষ দশ দিনে বিজোড় রাতসমূহে সজাগ থেকে ইবাদত-বন্দেগীর মাধ্যমে শবে ক্বদর তালাশ করা, ই’তিকাফ করা এবং যাকাত ও ছদাকাতুল ফিতর আদায় করা। পাশাপাশি মিথ্যা, গীবত, চোগলখুরী, ঝগড়া-বিবাদ, চুরি-ডাকাতি, ছিনতাই, মারামারি, খুন-খারাবি, গালিগালাজ, অশ্লীল-অশালীন, বেপর্দা-বেহায়াপনা, ছবি, টিভি, সিনেমা, গানবাজনা, খেলাধুলা ইত্যাদি শরীয়তবিরোধী কাজ থেকে বিরত থেকে তাক্বওয়া অর্জন করা।

সর্বোপরি এ মাসের বিশেষ বিশেষ দিনসমূহ পালন করা। যে দিনসমূহ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং উনার পুত-পবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ উনাদের ও হযরত আওলাদ আলাইহিমুস সালাম উনাদের বিলাদতী শান, বিছালী শান ও বিশেষ শান মুবারক প্রকাশের সাথে সম্পর্কযুক্ত। সুবহানাল্লাহ!

বস্তুতঃ নিয়ামত হাছিলের মূল উসীলা ও উপলক্ষই হচ্ছেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এবং উনার সম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ উনারা ও আওলাদ আলাইহিমুস সালাম উনারা। সুবহানাল্লাহ! আর উনাদের খিদমত করা, তা’যীম-তাকরীম করা, ছানা-ছিফত বর্ণনা করার মাধ্যমে খুশি প্রকাশ করাই হচ্ছে সর্বশ্রেষ্ঠ ইবাদত। এই ইবাদতকারী ব্যক্তিগণ অবশ্যই ঈমানের সাথে ইনতিকাল করবেন এবং বিনা হিসেবে সুমহান জান্নাতে প্রবেশ করবেন। সুবহানাল্লাহ!

অতএব, উক্ত বিশেষ দিনসমূহ হচ্ছে ১, ৩, ৬, ৯, ১৭, ও ১৮ তারিখ। সুবহানাল্লাহ! বর্ণিত রয়েছে, এ মাসের ১৭ তারিখ বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিতা আহলিয়া উম্মুল মু’মিনীন হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম এবং সম্মানিতা আহলিয়া উম্মুল মু’মিনীন হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনারা। সুবহানাল্লাহ! উক্ত একই তারিখে শাহাদাতী শান মুবারক প্রকাশ করেন যিনি ইমামুল আউওয়াল মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম তিনি। এছাড়াও উক্ত তারিখে ঐতিহাসিক বদর জিহাদ এবং মক্কা শরীফ বিজয় সম্পাদিত হয়। সুবহানাল্লাহ!

অতঃপর ১৮ তারিখ বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার লখতে জিগার, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ হযরত রুক্বাইয়াহ আলাইহাস সালাম তিনি।

অতঃপর ৬ তারিখ বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার লখতে জিগার, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ হযরত উম্মু কুলছূম আলাইহাস সালাম তিনি।

অতঃপর ৩ তারিখ বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার লখতে জিগার, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ হযরত ফাতিমাতুয যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি।

অতঃপর ১ তারিখ বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত আওলাদ, গউছুল আ’যম, সাইয়্যিদুল আউলিয়া হযরত বড়পীর ছাহিব রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি।

অতঃপর ৯ তারিখ বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত আরেক আওলাদ, মুজাদ্দিদে আ’যম ইমামুল উমাম সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার সম্মানিত হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার লখতে জিগার, একমাত্র ছাহিবযাদাহ, খলীফাতুল উমাম সাইয়্যিদুনা হযরত শাহযাদাহ হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি। সুবহানাল্লাহ!

পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক  ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে এবং উনার সম্মানিত আহলু বাইত শরীফ উনাদেরকে ও আওলাদ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে নিজেদের সবকিছু থেকে মুহব্বত না করা পর্যন্ত কারো পক্ষে মু’মিন হওয়া সম্ভব নয়।

পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে আরো ইরশাদ মুবারক হয়েছে, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক  ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ উনারা ও সম্মানিত হযরত আওলাদ পাক আলাইহিমুস সালাম উনারা হচ্ছেন হযরত নূহ আলাইহিস সালাম উনার কিশতীর ন্যায়। উক্ত কিশতীতে যে উঠেছে সে (মহা প্লাবন থেকে) মুক্তি পেয়েছে, আর যে উঠেনি, সে মুক্তি পায়নি।

প্রতিভাত হলো, মহান আল্লাহ পাক উনার অসন্তুষ্টি ও জাহান্নামের আযাব থেকে মুক্তি পেতে হলে এবং জান্নাতের নিয়ামত ও সন্তুষ্টি মুবারক লাভ করতে হলে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ উনাদেরকে ও আওলাদ পাক আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত ও সম্মান করতে হবে, খিদমত করতে হবে এবং উনাদের ছানা-ছিফত মুবারকও বর্ণনা করতে হবে।

মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদেরকে তাওফীক দান করুন। আমীন।

সম্মানিত মাহে যিলহজ্জ শরীফ ও সম্মানিত মাহে মুর্হরম শরীফ এবং উনাদের আনুসঙ্গিক আলোচনা

পবিত্র মাহে শা’বান শরীফ এবং উনার প্রাসঙ্গিক আলোচনা

সম্পাদকীয়

মহাসম্মানিত শাহরুল আ’যম মাহে রবীউল আউওয়াল শরীফ ও উনার প্রাসঙ্গিক আলোচনা

পবিত্র মাহে রবীউছ ছানী শরীফ ও উনার প্রাসঙ্গিক আলোচনা