ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইউস সুন্নাহ ইমামে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-৬৬ (বিলাদাত শরীফ- ৮০ হিজরী, বিছাল শরীফ- ১৫০ হিজরী)

সংখ্যা: ২৮০তম সংখ্যা | বিভাগ:

সাইয়্যিদুনা ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সুস্পষ্ট মু’জিযা শরীফ

 

ইমামুল মুহাদ্দিছীন, শাইখুল উলামা ওয়াল মাশায়িখ সাইয়্যিদুনা হযরত শায়েখ ইবনে হাজার হাইছামী রহমাতুল্লাহি আলাইহি। তিনি সহ অনেক ইমাম, মুজতাহিদ ও আউলিয়ায়ে কিরাম রহমাতুল্লাহি আলাইহিম উনারা বলেছেন-

فِيْهِ (اَبِـيْ حَنِيْفَةَ رَحِـمَهُ اللهُ عَلَيْهِ) مُعْجِزَةٌ ظَاهِرَةٌ لِّلنَّبِـيِّ صَلَّي اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ حَيْثُ اَخْبَرَ بِـمَا سَيَقَعُ

 অর্থ: ইমামুল মুসলিমীন, ইমামুল মুহাদ্দিছীন মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সুস্পষ্ট মু’যিজা শরীফ উনার অন্তর্ভুক্ত। সুবহানাল্লাহ! (আল-খাইরাতুল হিসান- ১৬)

কেননা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি উনার দিকে ইশারা করে যে ইরশাদ মুবারক করেছেন-

لَوْ كَانَ الدِّيْنُ عِنْدَ الثُّرَيَّا لَذَهَبَ به رَجُلٌ مِّنْ فَارِسَ

অর্থ: সম্মানিত দ্বীন যদি সুরাইয়া তারকার কাছে চলে যায়, পারস্যের এক ব্যক্তি সেখান থেকে উনাকে ফিরিয়ে আনবেন। সুবহানাল্লাহ্! (বুখারী শরীফ, মুসলিম শরীফ)

তার বাস্তবায়ন করেছেন ইমামুল মুহাদ্দিছীন, ইমামুল মুসলিমীন সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি। তিনি মুসলিম উম্মাহকে একটি সুস্পষ্ট ও পুর্ণাঙ্গ মাযহাব উপহার দিয়ে সম্মানীত দ্বীন ইসলাম উনার ভীতকে সুদৃঢ় করেছেন। উম্মাহকে অতি সহজে মহান আল্লাহ পাক উনাকে এবং উনার মহাসম্মানিত রসূল নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে পাওয়ার পথ রচনা করে সুরাইয়া তারকার কাছ থেকে সম্মানিত দ্বীন উনাকে ফিরিয়ে আনার মত অসাধ্য কাজটি সুসম্পন্ন করেছেন। সুবহানাল্লাহ্!

রিয়াদ্বত মাশাক্কাত ও সাইয়্যিদুনা হযরত, ইমামে আ’যম রহমতুল্লাহি আলাইহি

رِيَاضَات (রিয়াদ্বাত) শব্দটি বহুবচন। একবচন    رِيَاضَة (রিয়াদ্বাহ)। অর্থ: সাধনা, অনুশীলন, পূনঃ পূণঃ করা, কোন কাজ দায়িমীভাবে করা। কোন কাজে বা বিষয়ে পূর্ণতায় পৌঁছার জন্য নিরলসভাবে, পূর্ণ শক্তি দিয়ে চেষ্টা- কোশেশ জারী (অব্যাহত) রাখাকে রিয়াদ্বত বলা হয়।

একইভাবে مَشَقَّات (মাশাক্কাত) শব্দটিও বহুবচন। তার একবচন مَشَقَّة (মাশাক্কাহ)। শাব্দিক অর্থ: কষ্ট, ক্লেশ, জটিলতা।

কোন লক্ষ্য-উদ্দেশ্য সাধন বা বাস্তবায়ন করার জন্য দুঃখ কষ্ট ও সর্বপ্রকার প্রতিকুল অবস্থার মোকাবেলা  করাকে মাশাক্কাত বলা হয়। রিয়াদ্বত-মাশাক্কাতকে مُـجَاهَدَةٌ (মুজাহাদা)ও  বলা হয়।

কোন বিষয়ে কামিয়াবী বা সফলতা লাভের জন্য রিয়াদ্বত-মাশাক্কাত অপরিহার্য। অলস ব্যক্তি কখনো সফলতা লাভ করতে পারে না। একইভাবে মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার মহাসম্মানিত রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মা’রিফাত-মুহব্বত, সন্তুষ্টি-রেযামন্দি হাছিলের ক্ষেত্রেও রিয়াদ্বত-মাশাক্কাতের গুরুত্ব অপরিসীম ও অনস্বীকার্য। বাবুল ইলমে ওয়াল হিকাম, আসাদুল্লাহিল গালিব, ইমামুল আউয়াল মিন আহলি বাইতে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যারা বিনা পরিশ্রমে কামিয়াবীর শীর্ষ চূড়ায় পৌছতে চায় তারা যেন অসম্ভবের পথে সারাজীবন ব্যয় করলো।” সর্বোপরি মহান আল্লাহ তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-

وَجَاهِدُوْا فِي اللهِ حَقَّ جِهَادِهٖ ۚ هُوَ اجْتَبَاكُمْ

অর্থ: তোমরা মহান আল্লাহ উনার সন্তুষ্টি মুবারক পাওয়ার জন্য যথাযথভাবে মুজাহাদা করো। মহান আল্লাহ পাক তিনি তোমাদেরকে মনোনীত করেছেন। অর্থাৎ, রিয়াদ্বত-মাশাক্কাতকারীগণের জন্য গইবী মদদ রয়েছে। (পবিত্র সূরা হজ্জ শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ৭৮)

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদ যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৪৬ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী)

ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইউস সুন্নাহ ইমামে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-৬২ (বিলাদাত শরীফ- ৮০ হিজরী, বিছাল শরীফ- ১৫০ হিজরী)

পঞ্চদশ হিজরী শতকের মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদুর রসূল, ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার সাইয়্যিদুনা মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার মহা সম্মানিতা আম্মা, আওলাদুর রসূল, সাইয়্যিদাতুনা আমাদের- হযরত দাদী হুযূর ক্বিবলা কা’বা আলাইহাস সালাম উনার সীমাহীন ফাদ্বায়িল-ফদ্বীলত, বুযূর্গী-সম্মান, মান-শান, বৈশিষ্ট্য এবং উনার অনুপম মাক্বাম সম্পর্কে কিঞ্চিৎ আলোকপাত-৬৬ -মুহম্মদ সা’দী

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আউলিয়া, ছূফীয়ে বাত্বিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলা উনার দিকে প্রস্থান-২১৬ -মুহম্মদ সা’দী

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদ যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৪৭ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী)