ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইউস সুন্নাহ ইমামে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-৬৫ (বিলাদাত শরীফ- ৮০ হিজরী, বিছাল শরীফ- ১৫০ হিজরী)

সংখ্যা: ২৭৯তম সংখ্যা | বিভাগ:

সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করলেন- “আপনি সঠিক ফাতওয়াই দিয়েছেন”

ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি একদিন জিজ্ঞাসিত হলেন, চার রাকায়াত বিশিষ্ট নামাযে প্রথম বৈঠকে তাশাহুদের পর যদি কেহ ভুলবশতঃ দরূদ শরীফ পাঠ করে, তাহলে তার নামাযের হুকুম কি?

সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি বললেন, ‘সে ব্যক্তির উপর সিজদায়ে সাহু ওয়াজিব হবে।’ অতঃপর একদিন সাইয়্যিদুল মুরসালীন ইমামুল মুরসালীন নূরে মজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিশেষ যিয়ারত মুবারক নসীব হলো। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি উনাকে উদ্দেশ্য করে ইরশাদ মুবারক করলেন, “হে ইমামুল মুসলিমীন! রহমাতুল্লাহি আলাইহি, আপনি এটা কেমন ফাতওয়া দিলেন যে, আমার উপর দরূদ শরীফ পড়লে সিজদায়ে সাহু ওয়াজিব হবে? আমার উপর দরূদ শরীফ পড়া কি অপরাধ?”

ইমামুল মুসলিমীন সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি বললেন, ইয়া রাসূল্লাল্লাহ, ইয়া হাবীবাল্লাহ, ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! বেখেয়ালে, অন্যমনস্ক হয়ে, অমনোযোগিতার সাথে আপনার উপর দরূদ শরীফ পাঠ করা আমি পছন্দ করি না। সে জন্যই আমি এ ফতওয়া দিয়েছি। সাইয়্যিদুল মুরসালীন ইমামুল মুরসালীন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার জওয়াব শুনে অত্যন্ত খুশি হলেন। ইরশাদ মুবারক করলেন, “আপনি সঠিক ফাতওয়াই দিয়েছেন।”

ওয়াআলাইকুমুস সালাম ইয়া ইমামাল মুসলিমীন

একদিন ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, ইমামুল মুহাদ্দিছীন সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি পবিত্র রওযা মুবারক যিয়ারতের উদ্দেশ্যে পবিত্র মদীনা শরীফে তাশরীফ নিলেন। অত্যন্ত আদব ও ইহতিরামের সাথে পবিত্র রওযা শরীফ উনার নিকটবর্তী হলেন। বললেন, আছছলাতু ওয়াস সালামু আলাইকা ইয়া রসূল্লাল্লাহ, ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম। তখন পবিত্র রওযা শরীফ থেকে আওয়াজ মুবারক আসলো “ওয়াআলাইকুমুস সালাম ইয়া ইমামাল মুসলিমীন! ”

উল্লেখ্য যে, ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, ইমামুল মুহাদ্দিছীন সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি পবিত্র রওযা মুবারক উনার প্রতি যে আদব ও সম্মান প্রদর্শন করেছেন তা ইতিহাসে বিরল। একবার তিনি সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম মালিক রহমাতুল্লাহি আলাইহি উনার সাক্ষাত লাভের উদ্দেশ্যে পবিত্র মদীনা শরীফে তাশরীফ নিলেন। সেখানে তিনদিন অবস্থান মুবারক করলেন। অবশেষে বললেন, আমি চলে যেতে চাই। সাইয়্যিদুনা ইমাম মালিক রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি অত্যন্ত আদবের সাথে বললেন, হে ইমামাল মুসলিমীন! আপনি অন্ততঃ আর একটি দিন অবস্থান করুন। আমাদেরকে বরকত দানে ধন্য করুন। সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি বললেন, আর সহ্য করতে পারছিনা। আমাকে চলে যাওয়ার অনুমতি দিন।

স্বর্তব্য যে, ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি যে তিনদিন পবিত্র মদীনা শরীফে অবস্থান মুবারক করেছেন, সে তিনদিন তিনি পবিত্র মদীনা শরীফ উনার সম্মানার্থে সেখানে অজু, ইস্তিঞ্জা করেননি। সুবহানাল্লাহ!

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদ যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৩৭ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী)

ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ ইমামে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-৫৩ (বিলাদাত শরীফ- ৮০ হিজরী, বিছাল শরীফ- ১৫০ হিজরী)

পঞ্চদশ হিজরী শতকের মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদুর রসূল, ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার সাইয়্যিদুনা মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার মহা সম্মানিতা আম্মা, আওলাদুর রসূল, সাইয়্যিদাতুনা আমাদের- হযরত দাদী হুযূর ক্বিবলা কা’বা আলাইহাস সালাম উনার সীমাহীন ফাদ্বায়িল-ফদ্বীলত, বুযূর্গী-সম্মান, মান-শান, বৈশিষ্ট্য এবং উনার অনুপম মাক্বাম সম্পর্কে কিঞ্চিৎ আলোকপাত-৫৭-মুহম্মদ সা’দী

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আউলিয়া, ছূফীয়ে বাত্বিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলা উনার দিকে প্রস্থান-২০৭ -মুহম্মদ সা’দী

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদুয যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৪৮ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী) ভারতে মুসলিম সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা (১)