ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইউস সুন্নাহ ইমামে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-৬২ (বিলাদাত শরীফ- ৮০ হিজরী, বিছাল শরীফ- ১৫০ হিজরী)

সংখ্যা: ২৭৬তম সংখ্যা | বিভাগ:

সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুস সাদিস মিন আহলি বাইতি রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্রতম ছোহবত মুবারক ইখতিয়ার (২)

ইমামুছ ছিদ্দিক্বীন, ইমামুম মিন আইম্মাতিল মুসলিমীন সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুছ ছাদিস মিন আহলি বাইতি রসূলি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হযরত ইমাম জা’ফর ছাদিক আলাইহিস সালাম উনারও মহাপবিত্রতম ছোহবত মুবারক ইখতিয়ার করেছেন ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়া দ্বীন সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি।

সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি একদা জিজ্ঞাসিত হলেন, আপনি কাকে সর্বাপেক্ষা বড় ফক্বীহ হিসেবে পেয়েছেন।

তিনি বলেন-

مَا رَاَيْتُ اَفْقَهُ مِنْ حَضْرَتْ اِمَامِ جَعْفَرَ بْنِ مُـحَمَّدٍ الصَّادِقِ عَلَيْهِ السَّلَامُ

অর্থ: আমি ইমামুস সাদিস মিন আহলি বাইতি রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম জা’ফর ছাদিক আলাইহিস সালাম উনার চেয়ে বড় ফক্বীহ আর কাউকে দেখিনি। সুবহানাল্লাহ! (তাহযীবুল কামাল-৫/৭৯, তাযকিরাতুল হুফফাজ-১/১৬, ইমাম আবূ হানীফা হাদীছ শাস্ত্রের প্রধান ইমাম-৩১৩)

সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি উনার মহাপবিত্রতম ছোহবত মুবারক উনার গুরুত্ব ও তাৎপর্য সম্পর্কে বলেছেন যে-

لَوْ لَا سَنَتَانِ لَـهَلَكَ اَبُوْ نُعْمَانَ

অর্থ: যদি (ইমামুস সাদিস আলাইহিস সালাম উনার পবিত্রতম ছোহবত মুবারক ইখতিয়ারের) দু’বছর না হতো তাহলে আবু নু’মান ইমাম আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি ধ্বংস হয়ে যেতেন। (তোহফাতুল ইছনাই আশারিয়া-৮, ইমাম আবূ হানীফা হাদীছ শাস্ত্রের প্রধান ইমাম-৩১৩)

সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি উনার

ফাতওয়ার স্বীকৃতি প্রদান

ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আ’যম রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার বিশিষ্ট ছাত্র সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ ইউসুফ রহমতুল্লাহি আলাইহি। তিনি বলেন, একদা সাইয়্যিদুনা ইমাম আ’যম রহমতুল্লাহি আলাইহি মসজিদে হারাম শরীফে বসে ফতওয়া দিচ্ছিলেন। সে সময় সাইয়্যিদুনা ইমামুস সাদিস আলাইহিস সালাম তিনি উপস্থিত হলেন।

মানুষের মধ্যে দাঁড়িয়ে রইলেন। সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আ’যম রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি জানা মাত্র দাঁড়িয়ে আরয করলেন-

يَا اِبْنَ رَسُوْلِ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ! لَوْ عَلِمْتُ اَوَّلَ مَا وَقَفْتُ لَـمَا قَعَدْتُ وَاَنْتَ قَائِمٌ فَقَالَ اِجْلِسْ فَافْتِ النَّاسَ، فَعَلٰى هٰذَا اَدْرَكْتُ اٰبَائِىْ

অর্থ: হে আওলাদে রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! ক্ষমা চাচ্ছি, যদি আপনার এখানে দাঁড়ানোর কথা আমি জানতাম তাহলে আমি কখনো বসতাম না। কাউকে ফাতওয়াও দিতাম না। তখন সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুস সাদিস আলাইহিস সালাম তিনি বললেন, আপনি বসুন। মানুষদেরকে ফাতওয়া দিন।

কেননা, আমি আমার সম্মানিত পিতা-পিতামহ উনাদেরকে এ পদ্ধতির উপর পেয়েছিলাম অর্থাৎ আপনি উনাদের কায়িম-মাক্বাম তথা স্থলাভিষিক্তরূপে আমল করছেন। সুবহানাল্লাহ! (মানাকিবুল ইমামিল আ’যম-১/১১৬, ইমাম আবূ হানীফা হাদীছ শাস্ত্রের প্রধান ইমাম-৩১৪)

উল্লেখ্য যে, হক্কানী-রব্বানী আলিম উনার উপস্থিতিতে সাধারণ লোকের কথা-বার্তা বলা, ফাতওয়া দেয়া জায়িয নেই। সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আ’যম রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি বিনয় প্রদর্শনার্থে সেটাই বলেছেন।

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদ যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৩৭ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী)

ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ ইমামে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-৫৩ (বিলাদাত শরীফ- ৮০ হিজরী, বিছাল শরীফ- ১৫০ হিজরী)

পঞ্চদশ হিজরী শতকের মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদুর রসূল, ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার সাইয়্যিদুনা মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার মহা সম্মানিতা আম্মা, আওলাদুর রসূল, সাইয়্যিদাতুনা আমাদের- হযরত দাদী হুযূর ক্বিবলা কা’বা আলাইহাস সালাম উনার সীমাহীন ফাদ্বায়িল-ফদ্বীলত, বুযূর্গী-সম্মান, মান-শান, বৈশিষ্ট্য এবং উনার অনুপম মাক্বাম সম্পর্কে কিঞ্চিৎ আলোকপাত-৫৭-মুহম্মদ সা’দী

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আউলিয়া, ছূফীয়ে বাত্বিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলা উনার দিকে প্রস্থান-২০৭ -মুহম্মদ সা’দী

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদুয যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৪৮ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী) ভারতে মুসলিম সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা (১)