কচু একটি সুন্নতি সবজি

সংখ্যা: ২৮৪তম সংখ্যা | বিভাগ:

ভিটামিন এ সমৃদ্ধ কচুর উপকারিতা কে বা না জানে। কিন্তু কচু খাওয়াও যে মহাসম্মানিত মহাপবিত্র সুন্নত মুবারক উনার অন্তর্ভুক্ত, তা জানা রয়েছে কী? মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র মদীনা শরীফ থেকে প্রায় ৯০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত জর্ডানের একমাত্র উপকূলীয় শহর আকাবা থেকে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নিকট কচু হাদিয়া করা হয়েছিলো এবং তিনি তা গ্রহণ করেছিলেন।

মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে,

وَقَالَ الدُّوْلَابـِيُّ: أَهَدٰى أَهْلُ أَيْلَةَ إِلَى النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ الْقُلْقَاسَ فَأَكَلَهٗ وَأَعَجَبَهٗ، وَقَالَ: مَا هٰذَا؟ فَـقَالُوْا: شَحْمَةَ الْأَرْضِ فَـقَالَ: اِنَّ شَحْمَةَ الْأَرْضِ لَطَيِّبَةٌ

অর্থ: হযরত দূলাবী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বলেন, আইলা (আকাবা) এর অধিবাসীরা মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নিকট কচু হাদিয়া হিসেবে পেশ করেন। মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি তা খেলেন এবং আশ্চর্য হলেন। অতঃপর তিনি বললেন, এটা কী? মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা বললেন, মাটিতে উৎপন্ন (সবজি)। তিনি ইরশাদ মুবারক করলেন, নিশ্চয়ই মাটিতে উৎপন্ন (সবজি) অতি উত্তম। সুবহানাল্লাহ! (ইমতাউল আসমা, সুবুলুল হুদা ওয়ার রাশাদ)

অপর বর্ণনায় এসেছে-

سَعِيْدُ بْنُ عَبْدِ الْعَزِيزِ قَالَ: قَدِمَ عَلٰى رَسُوْلِ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ وَفْدُ أَيْلَةَ بِـجِزْيَةٍ وَهَدِيَّةٍ فِيْهَا الْقُلْقَاسُ فَـقَبِلَ صُلْحَهُمْ وَجِزْيَـتَـهُمْ وَهَدِيَّـتَـهُمْ وَأَكَلَ الْقُلْقَاسَ وَقَالَ: “مَا هٰذَا؟ ” قَالُوْا: “شَحْمَةُ الْأَرْضِ”، قَالَ: “إِنَّ شَحْمَةَ الْأَرْضِ لَطَيِّبَةٌ”

অর্থ: হযরত সায়ীদ ইবনে আব্দুল আযীয রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বলেন, মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাহি ওয়া সাল্লাম উনার নিকট আইলা থেকে প্রতিনিধি দল জিযিয়া এবং হাদিয়া নিয়ে আগমন করলেন। এর মধ্যে কচু ছিলো। তাদের থেকে তাদের শান্তি চুক্তি, জিযিয়া এবং হাদিয়া গ্রহণ করা হলো। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি কচু খেলেন। তিনি ইরশাদ মুবারক করলেন, এটা কী? উনারা বললেন, মাটির নিচে উৎপন্ন (সবজি)। নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করলেন, নিশ্চয়ই মাটির নিচে উৎপন্ন (সবজি) অতি উত্তম। (আল আছারুল মারউয়িয়্যাতু ফিল আত্বয়ামাতিস সারিয়্যাহ)

মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র সুন্নত মুবারক পালন করার নিয়তে অত্যন্ত সহজলভ্য সবজি কচু খেলে একটি মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র সুন্নত মুবারক পালন করা হবে, মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র সুন্নত মুবারক পালন করার ফযীলত হাসিল করা যাবে এবং মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে একটি নিসবত মুবারক স্থাপন হবে। সুবাহানাল্লাহ!

মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার  মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে-

مَنْ اَحَبَّ سُنَّتِـىْ فَـقَدْ اَحَبَّنِـىْ وَمَنْ اَحَبَّنِـيْ كَانَ مَعِىَ فِـى الْـجَنَّةِ

অর্থ: যে আমার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র সুন্নত মুবারক উনাকে মুহব্বত করলো সে আমাকেই মুহব্বত করলো আর যে আমাকে মুহব্বত করলো সে আমার সাথেই সম্মানিত জান্নাতে অবস্থান করবে। সুবহানাল্লাহ!

-মুহম্মদ আবু ছাফওয়ান।

 

-:দৈনিক আল ইহসানের বিশেষ ব্যানার হেডিং তথা তাজদীদের ধারাবাহিকতায় মুজাদ্দিদে আ’যমের মুবারক সংযোজন:- ইসলাম- বিধর্মীদের ধর্ম পালনে কোন বাধা দেয় না। কারণ, প্রত্যেকেই তার নিজ ধর্ম পালনে স্বাধীন। ইসলাম- মুসলমানদের জন্যও বিধর্মীদের কোন ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যাওয়ার অনুমোদন করে না। পাশাপাশি মুসলমানদেরকে বিধর্মীদের অনুষ্ঠানে যেতে বিধর্মী কর্তৃক উৎসাহিত করাটাও শরীয়তসম্মত নয়। কেননা, মুসলমানরা বিধর্মীদেরকে ইসলাম পালনে বাধ্য করে না।

সাইয়্যিদুল আম্বিয়া, ইমামুল আতক্বিয়া, হাদিউল আওলিয়া, হাবীবুল্লাহ, নূরে মুজাস্সাম হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর বিলাদত শরীফ উপলক্ষে সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ, ঈদে আ’যম, ঈদে আকবর পবিত্র ঈদে মীলাদুন্ নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উদযাপন প্রসঙ্গে

মিছবাহুদ্ দুজা, মিফতাহুদ্ দারা, খইরুল ওয়ারা, হাবীবুল্লাহ, নূরে মুজাস্সাম হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর পবিত্রতম দেহ মুবারক, ঘাম মুবারক ও থুথু মুবারক-এর সৌরভের কাছে যত রকমের খুশবু আছে সবই ম্লান হয়ে যায়

আকমালুল মাওজূদাত, আজমালুল মাখলূক্বাত, আল্মুওয়াইইয়াদু বিওয়াদ্বিহিল বাইয়্যিনাত, হাবীবুল্লাহ, নূরে মুজাস্সাম হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর বৈশিষ্ট্য থেকেই সমস্ত আম্বিয়া আলাইহিমুস্ সালাম ও আওলিয়ায়ে কিরামগণ বৈশিষ্ট্যের অধিকারী হয়েছেন

আখলাকুহূ হামীদাহ, আফয়ালুহূ জামীলাহ, আলত্বাফুহূ কারীমাহ, হাবীবুল্লাহ, নূরে মুজাস্সাম হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর সদাচরণ হযরত উম্মুল মু’মিনীন রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুন্নাগণের সাথে