তাফসীরুল কুরআন: মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনই সর্বশ্রেষ্ঠ আমল

সংখ্যা: ২৮৫তম সংখ্যা | বিভাগ:

يَاۤ اَيُّهَا النَّاسُ قَدْ جَآءَتْكُمْ مَّوْعِظَةٌ مِّنْ رَّبِّكُمْ وَشِفَآءٌ لِّمَا فِىْ الصُّدُوْرِ وَهُدًى وَّرَحْمَةٌ لِّلْمُؤْمِنِيْنَ. قُلْ بِفَضْلِ اللهِ وَبِرَحْـمَتِهٖ فَبِذٰلِكَ فَـلْيَـفْرَحُوْا هُوَ خَيْـرٌ مِّـمَّا يَـجْمَعُوْنَ

তরজমা: “হে মানুষেরা! তোমাদের মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র রব তায়ালা উনার তরফ থেকে মহান নছীহতকারী, অন্তরের মহান আরোগ্য দানকারী, মহান হিদায়েত দানকারী এবং মু’মিনদের জন্য মহান রহমত মুবারক দানকারী তোমাদের নিকট তাশরীফ মুবারক নিয়েছেন। (আমার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!) আপনি (উম্মতদেরকে) বলে দিন, মহান আল্লাহ পাক উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ফদ্বল ও মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র রহমত মুবারক স¦রূপ আপনাকে যে তারা পেয়েছে, সেজন্য তাদের প্রতি কর্তব্য তথা ফরয হচ্ছে খুশি মুবারক প্রকাশ করা। এই খুশি মুবারক প্রকাশ করা হচ্ছে, তাদের সমস্ত ইবাদত থেকে সর্বউত্তম বা সর্বশ্রেষ্ঠ।” (সম্মানিত ও পবিত্র সূরা ইউনুস শরীফ: সম্মানিত ও পবিত্র আয়াত শরীফ ৫৭, ৫৮)

তাফসীর: অর্থাৎ মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব, মাহবূব সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিয়্যীন, রহমাতুল্লিল আলামীন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি কায়িনাতবাসীদের যিনি মহাসম্মানিত রব যিনি খ্বালিক্ব যিনি মালিক যিনি রব্বুল আলামীন মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট থেকে এসেছেন মানবজাতিকে নছীহত মুবারক করার জন্য, তাদের অন্তরকে আরোগ্য দান করার জন্য তথা পরিশুদ্ধ করার জন্য, তাদেরকে হিদায়েত দেয়ার জন্য এবং আমভাবে কায়িনাতবাসী সকলকে আর খাছভাবে মু’মিনদেরকে রহমত, বরকত দান করার জন্য। সুবহানাল্লাহ! উনার উসীলায় যেহেতু কায়িনাতবাসী বিশেষ করে মানবজাতি সমস্ত নিয়ামত মুবারক লাভ করেছে তাই তাদের প্রতি খুশি মুবারক প্রকাশ কারার জন্য আদেশ মুবারক দেয়া হয়েছে এবং উক্ত খুশি মুবারক প্রকাশ করার বিষয়টিই সর্বশ্রেষ্ঠ ইবাদত হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। সুবহানাল্লাহ!

উল্লেখ্য, মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব, মাহবূব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হচ্ছেন ছাহিবে হিদায়েত তথা হিদায়েত মুবারক উনার মালিক। ছাহিবে রহমত তথা রহমত মুবারক উনার মালিক। ছাহিবে মাগফিরাত  তথা ক্ষমা মুবারক উনার মালিক। ছাহিবে শাফায়াত তথা শাফায়াত মুবারক উনার মালিক। ছাহিবে নাজাত তথা নাজাত মুবারক উনার মালিক। ছাহিবে হাউজে কাওছার তথা হাওজে কাওছার মুবারক উনার মালিক। ছাহিবে জান্নাত তথা জান্নাত মুবারক উনার মালিক। ছাহিবে নিয়ামত তথা নিয়ামত মুবারক উনার মালিক। এক কথায় মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব, মাহবূব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হচ্ছেন যিনি খ্বালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার প্রদত্ব সমস্ত নিয়ামত মুবারক উনার মালিক এবং সমস্ত নিয়ামত মুবারক উনার বণ্টনকারী। তাই কায়িনাতবাসী সকলকেই মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব, মাহবূব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে নিছবত মুবারক স্থাপন করতে হবে। উনার সাথে নিছবত মুবারক স্থাপন  করতে না পারলে কেউ কোন নিয়ামত মুবারক লাভ করতে পারবে না। সে ঈমান পাবে না, হিদায়েত পাবে না, রহমত মুবারক পাবে না, বরকত পাবে না, শাফায়াত বা সুপারিশ পাবে না, মাগফিরাত বা ক্ষমা পাবে না, নাজাত বা মুক্তি পাবে না, হাউজে কাওছারের পানি মুবারক পাবে না, সম্মানিত জান্নাত পাবে না এবং সম্মানিত জান্নাত উনার কোন নিয়ামত পাবে না, যিয়ারতে রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এবং দীদারে ইলাহী কোনটাই সে পাবে না। নাউযুবিল্লাহ!

যার কারণে যিনি খ্বালিক্ব মালিক রব তায়ালা মহান আল্লাহ পাক তিনি মহাসম্মানিত কিতাব পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করে জানিয়ে দিয়েছেন-

قُلْ إِنْ كُنْـتُمْ تُـحِبُّـوْنَ اللهَ فَاتَّبِعُوْنِيْ يُـحْبِبْكُمُ اللهُ وَيَغْفِرْ لَكُمْ ذُنُـوْبَكُمْ ۗ وَاللهُ غَفُوْرٌ رَّحِيْمٌ

অর্থ: (আমার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!) আপনি বলে দিন, যদি তোমরা (তোমাদের যিনি খ্বালিক্ব মালিক রব) মহান আল্লাহ পাক উনাকে মুহব্বত করে থাক তাহলে তোমরা আমাকে তথা মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে ইত্তিবা বা অনুসরণ করো। তবেই মহান আল্লাহ পাক তিনি তোমাদেরকে মুহব্বত করবেন, তোমাদের গুনাহখতাসমূহ ক্ষমা করে দিবেন এবং তোমাদের প্রতি  দয়ালু হবেন। মহান আল্লাহ পাক তিনি অত্যন্ত ক্ষমাশীল এবং অত্যন্ত দয়ালু।

উক্ত মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র আয়াত শরীফ উনার আলোকে প্রতিভাত হয়েছে, খ্বালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনাকে পেতে হলে উনার যিনি মহাসম্মানিত মহাপবিত্র হাবীব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে নিসবত মুবারক স্থাপন করতে হবে, উনার প্রতি ঈমান আনতে হবে এবং উনার সম্মানিত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করতে হবে, উনাদের প্রতি সুধারণা পোষণ করতে হবে, উনাদেরকে সম্মান মুবারক করতে হবে, উনাদের ছানা-ছিফত মুবারক করতে হবে, উনাদের খিদমত মুবারক উনার আঞ্জাম দিতে হবে। আর এ লক্ষ্যেই মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সুলত্বানুন নাছীর ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার মহান মুর্শিদ ক্বিবলা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি অনন্তকালব্যাপী মাহফিল জারি করেছেন পাশাপাশি প্রতিষ্ঠা করেছেন আন্তর্জাতিক মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচার কেন্দ্র। সুবহানাল্লাহ!

তাফসীরুল কুরআন সুমহান সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনই সর্বশ্রেষ্ঠ আমল

তাফসীরুল কুরআন সুমহান সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনই সর্বশ্রেষ্ঠ আমল

তাফসীরুল কুরআন সুমহান সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনই সর্বশ্রেষ্ঠ আমল

তাফসীরুল কুরআন সুমহান সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনই সর্বশ্রেষ্ঠ আমল

তাফসীরুল কুরআন: মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনই সর্বশ্রেষ্ঠ আমল