পঞ্চদশ হিজরী শতকের মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদুর রসূল, ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার সাইয়্যিদুনা মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার মহা সম্মানিতা আম্মা, আওলাদুর রসূল, সাইয়্যিদাতুনা আমাদের- হযরত দাদী হুযূর ক্বিবলা কা’বা আলাইহাস সালাম উনার সীমাহীন ফাদ্বায়িল-ফদ্বীলত, বুযূর্গী-সম্মান, মান-শান, বৈশিষ্ট্য এবং উনার অনুপম মাক্বাম সম্পর্কে কিঞ্চিৎ আলোকপাত-৬৬ -মুহম্মদ সা’দী

সংখ্যা: ২৭৬তম সংখ্যা | বিভাগ:

পূর্ব প্রকাশিতের পর

মুবারক শৈশব ও কৈশোর থেকেই সাইয়্যিদাতুনা হযরত দাদী হুযূর ক্বিবলা কা’বা আলাইহাস সালাম উনার সুন্নত মুবারক এবং শরয়ী পর্দা পালনের

একনিষ্ঠ অভ্যস্ততা:

মহান আল্লাহ পাক সুবহানাহু ওয়া তা’য়ালা তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন:

كُلَّ يَوْمٍ هُوَ فِـىْ شَأْنٍ

অর্থ: “মহান আল্লাহ পাক তিনি প্রতিদিন তথা প্রতি মুহূর্ত, প্রতিক্ষণ, অনুক্ষণ নতুন নতুন শান মুবারকে অধিষ্ঠিত থাকেন।” (পবিত্র সূরা আররহমান শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ২৯)

পবিত্র আয়াত শরীফ উনার ব্যাখ্যায় বলা হয়, মহান আল্লাহ পাক তিনি সদা-সর্বদা সমভাবে একই শান মুবারকে অধিষ্ঠিত থাকেন। তিনি নতুন কোনো শান মুবারক ধারণ ও প্রকাশ করেন না। তবে মহান আল্লাহ পাক উনার সীমাহীন শান মুাবরক থেকে কোনো কোনো শান মুবারক কখনো কখনো প্রকাশিত হয়। সুবহানাল্লাহ!

এ ক্ষেত্রে একান্ত সূক্ষ্মভাবে উপলব্ধির বিষয় হলো, সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, খতামুন নাবিয়্যীন, আকরামুল আউওয়ালীন ওয়াল আখিরীন, রহমাতুল্লিল আলামীন, মাশুকে মাওলা, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহানতম শানে নিরবচ্ছিন্ন মুহব্বত মুবারকে মহান আল্লাহ পাক উনার দায়িমীভাবে মশগুল থাকা এবং পবিত্রতম ছলাত শরীফ পাঠ করা, অর্থাৎ সীমাহীন ছানা-ছিফত মুবারক করার বিষয়টি “কখনো কখনো নয় (বিরতিহীনভাবে নয়)” বরং সার্বক্ষণিকভাবে। মহান আল্লাহ পাক তিনি অনুক্ষণ উনার প্রিয়তম হাবীব, প্রিয়তম মাশুক, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সীমাহীন, উনার অন্তহীন শান মুবারকে দায়িমীভাবে পবিত্রতম ছলাত শরীফ পাঠ এবং উনার পবিত্রতম ছানা-ছিফত মুবারকে মশগুল রয়েছেন। সুবহানাল্লাহ!

খলিক্ব, মালিক, রব মহান আল্লাহ পাক সুবহানাহূ ওয়া তায়ালা তিনি শুধু নিজেই যে পবিত্র ছলাত শরীফ পাঠে এবং পবিত্র ছানা ছিফতে মশগুল রয়েছেন এমন নয়। সমস্ত মাখলূক্বাতকেও তিনি উনার প্রিয়তম হাবীব, প্রিয়তম মাশুক, আকরামুল আউওয়ালীন ওয়াল আখিরীন, সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত ছলাত শরীফ পাঠে এবং উনার মহাসম্মানিত ছানা ছিফত মুবারকে মশগুল থাকার জন্য পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে নির্দেশনা মুবারক দিয়েছেন। সুবহানাল্লাহ! (চলবে)

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদ যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৩৭ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী)

ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ ইমামে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-৫৩ (বিলাদাত শরীফ- ৮০ হিজরী, বিছাল শরীফ- ১৫০ হিজরী)

পঞ্চদশ হিজরী শতকের মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদুর রসূল, ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার সাইয়্যিদুনা মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার মহা সম্মানিতা আম্মা, আওলাদুর রসূল, সাইয়্যিদাতুনা আমাদের- হযরত দাদী হুযূর ক্বিবলা কা’বা আলাইহাস সালাম উনার সীমাহীন ফাদ্বায়িল-ফদ্বীলত, বুযূর্গী-সম্মান, মান-শান, বৈশিষ্ট্য এবং উনার অনুপম মাক্বাম সম্পর্কে কিঞ্চিৎ আলোকপাত-৫৭-মুহম্মদ সা’দী

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আউলিয়া, ছূফীয়ে বাত্বিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলা উনার দিকে প্রস্থান-২০৭ -মুহম্মদ সা’দী

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদুয যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৪৮ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী) ভারতে মুসলিম সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা (১)