বাতিল ফিরক্বা ওহাবীদের অখ্যাত মুখপত্র আল কাওসারের মিথ্যাচারিতার জবাব-২৩ হাদীছ জালিয়াতী, ইবারত কারচুপি ও কিতাব নকল করা ওহাবীদেরই জন্মগত বদ অভ্যাস ওহাবী ফিরক্বাসহ সবগুলো বাতিল ফিরক্বা ইহুদী-নাছারাদের আবিষ্কার! তাদের এক নম্বর দালাল

সংখ্যা: ১৯২তম সংখ্যা | বিভাগ:

বর্তমানে ইসলামের নামে বা মুসলমানের ছূরতে ইসলাম ও মুসলমানদের ক্ষতি সাধনে বা মুসলমানদের ঈমান আমল নষ্ট করণে ইহুদী-নাছারাদের খাছ দালাল বা এজেন্ট হয়ে যারা কাজ করছে তারা হলো-

১.   কাদিয়ানী ২. শিয়া, ৩. ওহাবী।

ওহাবী বাতিল ফিরক্বা

বর্তমানে ইসলামের ছূরতে মুসলমানের ঈমান-আমলের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করছে যে দলটি, সেটি হচ্ছে- ‘ওহাবী ফিরক্বা’। অর্থাৎ ইবনে ওহাব নজদীর অনুসারীরা। আমাদের আহলে সুন্নত ওয়াল জামায়াতের ফতওয়া মুতাবিক ওহাবীরা বাতিল ফিরক্বার অন্তর্ভুক্ত। কারণ তাদের আক্বীদা ও আমল আহলে সুন্নত ওয়াল জামায়াতের খিলাফ।

ইবনে ওহাব ইহুদী দালাল

ব্রিটিশ গুপ্তচর হেমপারের স্বীকারোক্তি

শয়তান যে মানুষকে নেক সুরতে ধোঁকা দেয়, এ বিষয়টি ভালভাবে অনুধাবন করেছিল শয়তানের অনুচর ইহুদী এবং খ্রিস্টানরা। মুসলমানদের সোনালী যুগ এসেছিল শুধু ইসলামের পরিপূর্ণ অনুসরণের ফলে। শয়তানের চর ইহুদী খ্রিস্টানরা বুঝতে পেরেছিল মুসলমানদের মধ্যে বিভেদ, অনৈক্য, সংঘাত সৃষ্টি করতে পারলেই ইসলামের জাগরণ এবং বিশ্বশক্তি হিসেবে মুসলমানদের উত্থান ঠেকানো যাবে। আর তা করতে হবে ইসলামের মধ্যে ইসলামের নামে নতুন মতবাদ প্রবেশ করিয়ে। শুরু হয় দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা যার মূলে থাকে খ্রিস্টীয় ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদ। জন্ম হয় ওহাবী মতবাদের। ওহাবী মতবাদ সৃষ্টির মূলে থাকে একজন ব্রিটিশ গুপ্তচর হেমপার। মিসর, ইরাক, ইরান, হেজাজ ও তুরস্কে তার গোয়েন্দা তৎপরতা চালায় মুসলমানদের বিভ্রান্ত করার জন্য। “Confession of British Spy and British enmity against Islam” গ্রন্থ হচ্ছে হেমপারের স্বীকারোক্তিমূলক রচনা। মাসিক আল বাইয়্যিনাত-এর মতামত বিভাগে ১২৪তম সংখ্যা থেকে ১৭৭তম সংখ্যায় তা বিস্তারিতভাবে উল্লেখ করা হয়েছে। নিম্নে সংক্ষিপ্তভাবে কিছু বিষয় উল্লেখ করা হলো-

(পূর্ব প্রকাশিতের পর)

মি. হেমপার লিখেছে- কুম্মী: রসূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিছাল শরীফ-এর পর উম্মতকে কুরআন শরীফ বুঝাবার অত্যন্ত প্রয়োজন ছিল। কেননা জনসাধারণ নিজের জীবনকে আল্লাহ পাক উনার নির্দেশানুযায়ী পরিচালিত করতে চেয়েছিল। এ জন্য পয়গম্বর হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম গায়েবী ইলমের ভিত্তিতে কিতাবে ইলাহীর মূল ধরে আর ইতরত (বংশধরকে) কুরআন-এর ভাষ্যকার ও কিতাবের ব্যাখ্যা ঠিকমত উম্মতের নিকট পেশ করার জন্য হাওয়ালা করেছেন। ইবনে আব্দুল ওহাব এরপর পিঞ্জরাবদ্ধ পাখির ন্যায় ছটফট করতে থাকে। ইবনে আব্দুল ওহাবের সাথে দীর্ঘকাল মেলামেশা ও দেখা সাক্ষাতে বুঝতে পারলাম যে, ব্রিটিশ সরকারের উদ্দেশ্যাবলীকে কার্যকরী করার জন্য এ ব্যক্তি অত্যন্ত উপযোগী হবে। তার উচ্চাভিলাষ, খ্যাতি কামনা, অহঙ্কার ও আত্মম্ভরিতার দ্বারা উলামায়ে কিরাম, মাশায়িখে ইসলাম লক্ষ্য বস্তুতে পরিণত হয়।  কুরআন শরীফ ও হাদীছ শরীফ থেকে রাজনৈতিক ফায়দা লাভ করাই তার মুখ্য উদ্দেশ্য ছিল। আমি চিন্তা করলাম কোথায় এ অহঙ্কারী যুবক, আর কোথায় ইস্তাস্বুলের ওই তুর্কী বৃদ্ধ ব্যক্তি (আহমদ আফেন্দী), যাঁর চিন্তা ধারায় ও কর্মতৎপরতায় যেন হাজার বছর আগেকার লোকদের ছবি ফুটে উঠে। সময়ের পরিবর্তনের সাথে তিনি নিজের মধ্যে সামান্যতম পরিবর্তনও আনেননি। হানাফী মাযহাবের অনুসারী যে বয়োবৃদ্ধ লোকটি হযরত আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-এর নাম উচ্চারণ করার আগে ওযু করে নিতেন। আহলে সুন্নতের নিকট হাদীছ শরীফ-এর সবচেয়ে বিশ্বস্ত ও প্রমাণ ভিত্তিক কিতাব ছহীহ বুখারী শরীফ অধ্যয়ন করা তিনি ফরয মনে করতেন এবং ওযু ছাড়া তিনি এ কিতাবটি স্পর্শ করতেন না। তাঁর সম্পূর্ণ বিপরীত হল ইবনে আব্দুল ওহাব। সে হযরত আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহিকে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য মনে করতো আর তাঁকে বিশ্বস্ত মনে করতো না। সে বলতো, আমি হযরত আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-এর চেয়ে বেশি জানি। সে বলতো ছহীহ বুখারী শরীফ বেহুদা কিতাব বৈ কিছু নয়।

– মুহম্মদ আবুল হাসান, বাসাবো, ঢাকা।

মাননীয় প্রধান উপদেষ্টার নিকট খোলা চিঠি দেশটা কী মুসলমানের, না ঐ নিকৃষ্ট সংস্কৃতিবাদীদের? দেশে কী ১৫ কোটি মুসলমান প্রাধান্য পাবে, না মাত্র লাখেরও কম সংস্কৃতিকর্মী প্রতিষ্ঠা পাবে? সংস্কৃতিকর্মীর প্রচারণা দ্বারা কি রাষ্ট্রধর্ম ইসলামের এদেশে ‘ইসলাম’ ও ‘মুসলমান’ তুলে দেয়া হবে?  মিটিয়ে ফেলা হবে? মুছে ফেলা হবে? বিধর্মীদের সাথে একাকার করে দেয়া হবে? তাহলে ‘মরলে শহীদ বাঁচলে গাজী’ চিরন্তন সে ঐতিহ্য কোথায় যাবে?

যুগের আবূ জাহিল, মুনাফিক ও দাজ্জালে কায্যাবদের বিরোধিতাই প্রমাণ করে যে, রাজারবাগ শরীফ-এর হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী হক্ব। খারিজীপন্থী ওহাবীদের মিথ্যা অপপ্রচারের দাঁতভাঙ্গা জবাব-৫৭

চাঁদ দেখা ও নতুন চন্দ্রতারিখ নিয়ে প্রাসঙ্গিক আলোচনা-২৫

ভ্রান্ত ওহাবী মতবাদ প্রচারের নেপথ্যে-৭

বাতিল ফিরক্বা ওহাবীদের অখ্যাত মুখপত্র আল কাওসারের মিথ্যাচারিতার জবাব-১৮ হাদীছ জালিয়াতী, ইবারত কারচুপি ও কিতাব নকল করা ওহাবীদেরই জন্মগত বদ অভ্যাস ওহাবী ফিরক্বাসহ সবগুলো বাতিল ফিরক্বাহ ইহুদী-নাছারাদের আবিষ্কার! তাদের এক নম্বর দালাল