আনজুমানে আল বাইয়্যিনাত ও মাহফিল সংবাদ

সংখ্যা: ২৯৩তম সংখ্যা | বিভাগ:

আল বাইয়্যিনাত শরীফ প্রতিবেদন: ছাহিবু সাইয়্যিদি সাইয়্যিদিল আ’ইয়াদ শরীফ, আল জাব্বারিউল আউওয়াল, আল ক্বউইউল আউওয়াল, হাবীবুল্লাহ, সাইয়্যিদুনা হযরত সুলত্বানুন নাছীর আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “প্রত্যেকের ক্বিবলা রয়েছে, যে দিকে সে রুজু থাকে।” এ পবিত্র আয়াত শরীফ উনার ব্যাখ্যায় বলা হয়, মহান আল্লাহ পাক তিনি দায়েমীভাবে ছলাত শরীফ ও সালাম শরীফ পাঠের মাধ্যমে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার দিকে রুজু রয়েছেন। একইভাবে মহান আল্লাহ পাক তিনি ছলাত শরীফ ও সালাম শরীফ দায়েমীভাবে পাঠ করানোর মাধ্যমে হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার দিকে রুজু করেছেন। পাশাপাশি ছলাত শরীফ ও সালাম শরীফ পাঠের ইলম শিক্ষা দিয়ে সমস্ত সৃষ্টিকে মহান আল্লাহ পাক তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার দিকে রুজু করে দিয়েছেন। সর্বোপরি দায়েমীভাবে ছলাত শরীফ ও সালাম শরীফ পাঠের মাধ্যমে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার দিকে রুজু হওয়ার জন্য মহান আল্লাহ পাক তিনি মানুষ ও জিন জাতিকে আদেশ মুবারক করেছেন।

মূলত, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হচ্ছেন মহান আল্লাহ পাক তিনিসহ সারা কায়িনাতের মহাসম্মানিত ক্বিবলা। এখন উনাকে ক্বিবলা হিসেবে মেনে নেয়া এবং উনার দিকে হাক্বীক্বীভাবে রুজু হওয়া প্রত্যেকের জন্যই ফরজ।

এখন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার দিকে রুজু হওয়ার বিষয়টি দুইভাবে প্রকাশ পায়। প্রথমত, জবানী বা মৌখিক। সদা সর্বদা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ছানা-ছিফত মুবারক করা, উনার বুলন্দি শান মুবারক বর্ণনা করা, উনার পবিত্র মীলাদ শরীফ পাঠ করা, উনার জন্য খুশি প্রকাশ করা। এ বিষয়টিই পবিত্র সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’ইয়াদ শরীফ হিসেবে পরিচিত। দ্বিতীয়ত, বাহ্যিক আমলগত। যা পবিত্র সুন্নত মুবারক হিসেবে পরিচিত।  বান্দা-উম্মত জন্মের পূর্ব হতে মৃত্যুর পর পর্যন্ত জীবনের প্রতিটি বিষয়ে সার্বিকভাবে পবিত্র সুন্নত মুবারক অনুসরণ করতে হবে। পবিত্র সুন্নত মুবারক ব্যতিত বান্দা-উম্মত অন্য কোন কিছুই করতে পারবেনা।

সারা কায়িনাতকে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার দিকে হাক্বীক্বীভাবে রুজু করার জন্যই আমরা পবিত্র সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’ইয়াদ শরীফ মাহফিল অনন্তকালব্যাপী জারী করেছি। একইসাথে আন্তর্জাতিক পবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচারকেন্দ্র আমরা জারী করেছি।

মূলত, অনন্তকালব্যাপী জারীকৃত পবিত্র সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’ইয়াদ শরীফ মাহফিল এবং আন্তর্জাতিক পবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচারকেন্দ্র উনাদের গুরুত্ব-তাৎপর্য উপলব্ধি করে তা আমলে বাস্তবায়ন করতে হলে ইছলাহ বা অন্তর পরিশুদ্ধ করে তায়াল্লুক্ব-নিসবত হাছিল করতে হবে। আর এ জন্যই প্রত্যেককে কামিল শায়েখ উনার নিকট বাইয়াত হয়ে উনার দেয়া নির্দেশনা মুবারক যথাযথভাবে আমলে বাস্তবায়ন করতে হবে। প্রত্যেক সালিককে পাস আনফাস যিকির করতে হবে, ত্বরীক্বা অনুযায়ী বাদ ইশা ও বাদ ফজর দুরুদ শরীফ একশতবার করে দৈনিক পাঠ করতে হবে। দৈনিক কমপক্ষে এক ঘন্টা ক্বলবী যিকির করতে হবে। পাশাপাশি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র নসবনামাহ মুবারক এবং নিজস্ব ত্বরীক্বার শাজরা শরীফ ও ইলমে তাছাওউফের গুরুত্বপূর্ণ এগারোটি বিষয় দৈনিক কমপক্ষে একবার পাঠ করতে হবে। আর এ বিষয়গুলোর সাথে সাথে কামিল শায়েখ উনার পবিত্র ছোহবত মুবারকও তারতীব অনুযায়ী ইখতিয়ার করতে হবে। তখন বান্দা-উম্মতের পক্ষে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে ক্বিবলা হিসেবে মেনে নিয়ে উনার দিকে হাক্বীক্বীভাবে রুজু হওয়া সহজ এবং সম্ভব হবে। তখনই হাক্বীক্বীভাবে পবিত্র সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’ইয়াদ শরীফ পালন করা অতিব সহজ ও সম্ভব হবে। তখনই পবিত্র সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’ইয়াদ শরীফ অর্থাৎ পবিত্র সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিশ শুহূরিল আ’যম শরীফ পবিত্র রবীউল আউওয়াল শরীফ এবং সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’দাদ শরীফ অর্থাৎ পবিত্র ১২ই শরীফ সর্বাধিক খুশি প্রকাশের মাধ্যমে মুহব্বত ও ঈমানের বহিপ্রকাশ ঘটবে।

মাহফিল সংবাদ

আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, সাইয়্যিদুনা হযরত সুলত্বানুন নাছীর আলাইহিস সালাম উনার এবং ক্বায়িম মাক্বামে হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম, সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল উমাম আলাইহাস সালাম উনার মুবারক পৃষ্ঠপোষকতায় রাজারবাগ দরবার শরীফে মহাসমারোহে ও ব্যাপক শান শওকতে কুল-কায়িনাতের সর্বশ্রেষ্ঠ ইবাদত মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’ইয়াদ শরীফ উপলক্ষে পুরুষদের জন্য প্রতিদিন বা’দ মাগরিব এবং মহিলাদের জন্য প্রতিদিন বাদ যুহর আযীমুশশান মাহফিল অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পাশাপাশি প্রতিদিন সুবহে সাদিকের সময় সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আওক্বাত শরীফ পালিত হচ্ছেন। একইভাবে প্রতি সপ্তাহে ইয়াওমুল ইছনাইনিল আ’যীম শরীফে সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আইয়্যাম শরীফ ও সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিস সাআত শরীফ এবং প্রতি মাসে সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’দাদ শরীফ পবিত্র ১২ই শরীফে কোটি কোটি কন্ঠে পবিত্র মীলাদ শরীফ মাহফিল অনুষ্ঠিত হচ্ছে।  সর্বোপরি প্রতি মাহফিলেই নছীহত মুবারক ও সারাবিশ্বের মুসলিম উম্মাহের জন্য বিশেষ দুয়া-মুনাজাত শরীফ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সাথে সাথে আযীমুশশান তাবারুকও বিতরণ করা হয়। সুবহানাল্লাহ।

বলাবাহুল্য যে, অনন্তকালব্যাপী জারীকৃত পবিত্র সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’ইয়াদ শরীফ বিশেষ শান মুবারক হিসেবে সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিশ শুহূর শরীফ পবিত্র রবীউল আউয়াল শরীফ এবং সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’দাদ শরীফ পবিত্র ১২ই শরীফ উপলক্ষে বিশেষভাবে বিশেষ ইন্তিজামে নকশায়ে হায়দার, সাইয়্যিদুনা হযরত শাফিউল উমাম আলাইহিস সালাম উনার এবং নকশায়ে যুন নূরাইন, সাইয়্যিদুনা হযরত হাদিউল উমাম আলাইহিস সালাম উনার অর্থাৎ উনাদের পবিত্র নছীহত মুবারকের মাধ্যমে পবিত্র ৪ঠা মুহররম শরীফ হতে ৯০ দিনব্যাপী বিশেষ মাহফিল শুরু হয়েছে। যার প্রথম ৪০ দিন প্রতিযোগিতা মাহফিল। দ্বিতীয় ২ দিন সামা শরীফ মাহফিল। তৃতীয় ৪৫ দিন ওয়াজ শরীফ মাহফিল এবং চতুর্থ ৩ দিন সামা শরীফ মাহফিল। এ উপলক্ষে বহুমুখী কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। যাবতীয় কার্যক্রমে আর্থিক-শারীরিক তথা সার্বিকভাবে শরীক থাকার জন্য সিলসিলাভুক্ত সবাইকে বিশেষভাবে নির্দেশনা মুবারক প্রদান করা হয়েছে।

শোক সংবাদ

রাজারবাগ শরীফ উনার মহাসম্মানিত মুরশিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা হযরত সুলত্বানুন নাছীর আলাইহিস সালাম উনার কনিষ্ট ভাই, স্ব-মহিমায় উজ্জল নক্ষত্র, সুন্নতে নববীতে সুশোভিত রাজারবাগ শরীফ সিলসিলার সবার মুকুটস্বরূপ, আমাদের ‘ছোট চাচা হুযূর’ “সাইয়্যিদ মুহম্মদ মুফীজুর রহমান আলাইহিস সালাম” তিনি গত পবিত্র ২২শে মুহর্রমুল হারাম শরীফ ১৪৪৫ হিজরী মুতাবিক ১১ই ছালিছ ১৩৯১ শামসী, ১০ই আগষ্ট ২০২৩ ঈসায়ী ইয়াওমুল খমীস (বৃহস্পতিবার) সকাল ১১টা ৩০ মিনিটে ৬৩ বছর বয়স মুবারকে পবিত্র বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন। (ইন্না লিল্লাহী ওয়া ইন্না ইলাইহি রযিঊন)

আমাদের ছোট চাচা হুযূর আলাইহিস সালাম উনার প্রথম ও দ্বিতীয় জানাজা নামাজ রাজারবাগ শরীফে অনুষ্ঠিত হয়। উনার তৃতীয় জানাজা নামাজে ইমামতি করেন সাইয়্যিদুনা হযরত খলীফাতুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি। নূরানীগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানাধীন প্রভাকরদী শরীফ মিয়া বাড়ী জামে মসজিদ সংলগ্ন পারিবারিক মাজার শরীফে উনার রওজা শরীফ স্থাপন করা হয়।

বিনয় ও শরাফতের দীপ্তমান প্রতীক আমাদের ছোট চাচা হুযূর তিনি ১৩৮২ হিজরী সনের ১৬ই ছফর মুতাবিক ১৯৬২ ঈসায়ী সনের ১৭ই জুলাই ইয়াওমুছ ছুলাছা বা মঙ্গলবার ঢাকার প্রাণকেন্দ্রে রাজারবাগ শরীফে বিলাদত শরীফ বা জন্মগ্রহণ করেন।  শৈশব, কৈশোর হতে শুরু করে জীবনের অধিকাংশ সময়ই তিনি এ রাজারবাগ শরীফেই অতিবাহিত করেন।

১৯৯৮ সালের শুরুর দিকে তিনি শাদী মুবারক বা বিবাহ করেন। তিনি ওয়ারিস হিসেবে রেখে গেছেন দুইজন আদর্শ সন্তানকে। প্রথমজন সাইয়্যিদ মুহম্মদ মুস্তাশহিদুর রহমান রিফাত।  দ্বিতীয়জন সাইয়্যিদ মুহম্মদ মুস্তাজিউর রহমান আয়াজ।

অত্যধিক দানশীল আমাদের ছোট চাচা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি মুহম্মদিয়া জামিয়া শরীফ মাদরাসা ও ইয়াতীমখানা পরিচালনা পরিষদের সম্মানিত উপদেষ্টা হিসেবে আমৃত্য দায়িত্ব পালন করেন।  তিনি একাধারে দানশীল, মসজিদ-মাদরাসা প্রতিষ্ঠাতাকারী, ইয়াতীম ও অসহায়দের পৃষ্ঠপোষক। ৬৩ বছরের সুন্নতী জীবন মুবারকে তিনি রেখে গেছেন অসংখ্য ছদকায়ে জারিয়াহ। রেখে গেছেন বহু সংখ্যক গুনগ্রাহী এবং শুভাকাঙ্খী।

আনজুমানে আল বাইয়্যিনাত ও মাহফিল সংবাদ

আনজুমানে আল বাইয়্যিনাত ও মাহফিল সংবাদ

আনজুমানে আল বাইয়্যিনাত ও মাহফিল সংবাদ

আনজুমানে আল বাইয়্যিনাত ও মাহফিল সংবাদ

আনজুমানে আল বাইয়্যিনাত ও মাহফিল সংবাদ