আ’লামু বিত্ ত্বিব, আ’লামু বিল ফারায়িদ্ব, আ’লামু বিসুনানি রসূলিল্লাহ, হুল্লাতুল ইসলাম, আশাদ্দু হিজাবান, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার নাম মুবারক উনার পূর্বে ব্যবহৃত “মুহইউস সুন্নাহ” লক্বব মুবারক বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-১৫০

সংখ্যা: ২৫৬তম সংখ্যা | বিভাগ:

আল্লামা মুফতী মুহম্মদ কাওছার আহমদ

খাবারের শুরুতে এবং শেষে

লবণ খাওয়া সুন্নত (৩)

নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-

من حدث بـحديث وهو يرى انه كذب فهو احد الكاذبين

অর্থ: “যে ব্যক্তি হাদীছ শরীফ বর্ণনা করে (ছহীহ বিচার-বিশ্লেষন ছাড়াই) অভিমত পোষণ করে যে, এই হাদীছ শরীফখানা মওজু বা মিথ্যা সে ব্যক্তি মিথ্যাবাদীদের অন্তর্ভুক্ত। (শুয়াবুল ঈমান-১/২৮)

উল্লেখিত পবিত্র হাদীছ শরীফখানা ছহীহ সনদে বর্ণিত আছে। কিন্তু কেউ মাওজু বলে প্রমান করতে পারেনি। মাওজু ঐ হাদীছ শরীফকে বলে যার রাবী বা বর্ণনাকারী জীবনে কখনো নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক শানে মিথ্যা বলেছে। সে ব্যক্তি যদি পরবর্তী জীবনে খালিছ তওবা করে তবুও তার বর্ণিত হাদীছ শরীফ গ্রহনযোগ্য নয়।

সুলত্বানুল আরেফীন, মুজাদ্দিদে যামান সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম জালালুদ্দীন সুয়ূতী রহমাতুল্লাহি আলাইহিসহ কতিপয় মুহাদ্দিছীনে কিরাম রহমাতুল্লাহি আলাইহি উক্ত হাদীছ শরীফখানার একটি সনদে যেখানে হযরত ঈসা ইবনে আসয়াস রহমাতুল্লাহি আলাইহি এবং হযরত জুয়াইবির রহমাতুল্লাহি আলাইহি রয়েছেন। উনাদের দুজনের ব্যাপারে বলেছেন যে, হযরত ঈসা ইবনে আসয়াছ রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি হচ্ছে মাজহুল রাবী। আর জুয়াইবির রহমাতুল্লাহি আলাইহি উনার ক্ষেত্রে বলেছেন যে, তিনি মাতরুক রাবী।

আর একথা সর্বজনমান্য তথা সকল মুহাদ্দিছে কিরাম রহমাতুল্লাহি আলাইহিম উনারা একমত যে, মাজহুল রাবীর বর্ণিত হাদীছ শরীফ ছহীহ বলে গণ্য নয়। মাজহুল রাবীর বর্ণিত হাদীছ শরীফ যঈফ।

আর মাতরুক রাবী বলে, যিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক শানে মিথ্যা কথা বলেননি বটে। তবে দুনিয়াবী কাজে-কর্মে মিথ্যা বলেছেন বলে প্রমাণিত আছে। এরূপ ব্যক্তি যদি পরবর্তী জীবনে খালিছ তওবা করেন এবং মিথ্যা বলেন না বলে প্রমাণ হয় তাহলে উনার বর্ণিত হাদীছ শরীফ গ্রহণযোগ্য।

আর উক্ত রাবী হযরত জুয়াইবির রহমাতুল্লাহি আলাইহি পরবর্তী জীবনে খালিছ তওবা করেননি এরূপ কোন প্রমাণ কেউ দিতে পারবে কি?

“নুজহাতুল মাজালিস ওয়া মুন্তাখাবুন নাফায়িস” কিতাবে বর্ণিত আছে-

عن حضرة على بـن ابى طالب عليه السلام عن النبى صلى الله عليه وسلم. اذا اكلت فابدأ بالملح و اختم بالملح فان الملح شفاء من سبعين داء اولها الجذام والبرص و وضع الـحلق و الاضراس والبطن.

অর্থ: ইমামুল আউয়াল মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ হযরত আলী কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহু আলাইহিস সালাম তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার থেকে বর্ণনা করেন। তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- যখন আপনি খাদ্য খাবেন তখন শুরুতে লবন খাবেন এবং খাওয়া শেষ করে লবন খাবেন। কেননা লবনের মধ্যে সত্তর প্রকার রোগের শিফা (রোগ মুক্তি) রয়েছে। তার প্রথমটি হচ্ছে কুষ্ঠ রোগ, শ্বেতকুষ্ট, গলার ব্যাথা, দাঁতের ব্যাথা, পেটের ব্যাথা।”

উক্ত কিতাবে আরো বর্ণিত আছে-

وقالت ام الـمؤمنين حضرت عائشة عليها السلام من اكل الـملح قبل كل شى وبعد كل شى دفع الله عنه ثلثمائة وثمانين نوعا من البلاء اهونـها الـجذام.

অর্থ: “উম্মুল মু’মিনীন হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- যে ব্যক্তি সব ধরনের খাবারের শুরুতে এবং শেষে লবন খাবে মহান আল্লাহ পাক তিনি তাকে ৩৮০ প্রকার রোগ থেকে শিফা বা মুক্তি দান করবেন। তার ছোটটি হচ্ছে-কুষ্ট রোগ।” সুবহানাল্লাহ!

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৭৯

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৮০

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৮১

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৮২

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৮৩