আ’লামু বিত্ ত্বিব, আ’লামু বিল ফারায়িদ্ব, আ’লামু বিসুনানি রসূলিল্লাহ, হুল্লাতুল ইসলাম, আশাদ্দু হিজাবান, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-উনার নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৮৭

সংখ্যা: ১৯৩তম সংখ্যা | বিভাগ:

-হযরত মাওলানা মুফতী সাইয়্যিদ মুহম্মদ আব্দুল হালীম

‘মুহ্ইস সুন্নাহ’ লক্বব মুবারক প্রসঙ্গে

খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর জিন্দাকৃত বা পুনঃপ্রচলন করা কতিপয় সুন্নতের বিবরণ:

জুব্বা পরিধান করা খাছ সুন্নত:

জুব্বা পরিধান করা খাছ সুন্নাত। আল্লাহ পাক-এর হাবীব সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম জু’মুয়া, ঈদাইন এবং বিশেষ বিশেষ সময়ে কামীছ বা কোর্তা মুবারকের উপরে জুব্বা পরিধান করতেন। জুব্বা হচ্ছে সংকীর্ণ হাতা বিশিষ্ট, সামনে ফাঁড়া, ঢোলা-ঢিলা এক প্রকার পোশাক। যার গলার উপর দিয়ে রেশমের দ্বারা কারুকার্য করা থাকে।

উলামায়ে ছূ’দের মনগড়া আমল, তাদের হীনমন্যতা এবং কুতৎপরতার কারণে সেই সুন্নত বিলুপ্ত হয়। তারা জুব্বার পরিবর্তে ইহুদী-নাছারাদের অনুসরণে সেরওয়ানী, আচকান, কোর্ট, ওয়েস্ট কোর্ট ইত্যাদি পরিধান করার প্রচলন করে। তা খুবই স্বাচ্ছন্দের সাথে পরিধান করতে গর্ববোধ করে (নাঊযুবিল্লাহ)। যার ফলে অতি সহজেই ‘জুব্বা’-এর সুন্নতটি বিলুপ্ত হয়ে বিদয়াতের প্রচলন হয়। কালক্রমে সেই বিদয়াতটিই সুন্নতে পরিণত হয়। আর সুন্নতী জুব্বাটিকে সাধারণ মানুষ বিদয়াত বলে অভিহিত করে। নাউজুবিল্লাহ!

যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী সেই বিলুপ্ত সুন্নতটিও জিন্দা  বা পুনঃপ্রচলন করেন।

এ প্রসঙ্গে উনার দর্জি ছাহেব জানান যে, তিনি স্বয়ং নিজ হাত মুবারক দ্বারা সেই দর্জি ছাহেবকে জুব্বা বানানো শিক্ষা দিয়েছেন। অদ্যাবধি তিনি সেই তা’লীম অনুযায়ী জুব্বা তৈরী করে যাচ্ছেন।

হাদীছ শরীফ-এ ইরশাদ হয়েছে,

قالت اسماء بنت ابى بكر رضى الله تعالى عنها هذه جبة رسول الله صلى الله عليه وسلم فاخرجت الى جبة طيالسة كسروانية لها لبنة ديباج وفرجيها مكفوفين بالديباج فقالت هذه كانت عند عائشة حتى قبضت فلما قبضت قبضتها وكان النبى يلبسها فنحن نغسلها للمرضى يستشفى بها.

অর্থ: হযরত আসমা বিনতু আবী বকর রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা বলেন, এই রসূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর জুব্বা, একথা বলে তিনি একটি পারস্য দেশীয় শাল জাতীয় জুব্বা বের করে দেখান। জুব্বাটির কাঁধ গলার কাছে রেশমের কাজ করা এবং তার সামনের খোলা দুই প্রান্তে রেশমের ফিতা লাগানো। তিনি বলেন, এ জুব্বাটি হযরত আয়িশা ছিদ্দীক্বা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা-এর নিকট ছিল। উনার বিছাল শরীফ-এর পর আমি নিয়েছি। হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এটি পরিধান করতেন। তিনি জুমুয়ার দিন ও বাইরের প্রতিনিধিগণের সাথে দেখা করার জন্য এটি ব্যবহার করতেন। আমরা এ জুব্বা ধুয়ে সেই পানি রোগীদের সুস্থতার উদ্দেশ্যে ব্যবহার করি। (মুসলিম শরীফ, আছ-ছহীহ-৩/১৬৪১, বুখারী শরীফ, আল আদাবুল মুফরাদ পৃষ্ঠা ১২৭, আলবানী, ছহীহুল আদাবিল মুফরাদ পৃষ্ঠা ১৪০)

عن المغيرة بن شعبة قال خرج النبى صلى الله عليه وسلم لبعض حاجته فاتبعته باداوة من ماء فلما فضى حاجته قمت لاوضئه وعليه جبة رومية ضيقة الكم فاخرج يده من تحتها وطرحها عاتقه ثم توضأ.

অর্থ: হযরত মুগীরা ইবনে শু’বা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, আল্লাহ পাক-এর হাবীব সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হাযত পূরণের জন্য বাইরে গেলেন। আমি একটি পাত্রে পানি নিয়ে উনার পিছনে পিছনে গেলাম। তিনি প্রয়োজন সেরে আসলে আমি উনাকে অযূ করানোর জন্য এগিয়ে গেলাম। সে সময় উনার পরিধানে ছিলো একটি রূমী (রোম দেশীয়) জুব্বা মুবারক যার হাতা ছিল অত্যন্ত সংকীর্ণ। তাই তিনি জুব্বা মুবারক থেকে হাত মুবারক বের করে জুব্বা মুবারকটি কাঁধ মুবারকের উপর রেখে অযূ করলেন। (আখলাকুন্ নবী-১৬৪) (অসমাপ্ত)

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৭৮

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৭৯

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৮০

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৮১

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৮২