ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ ইমামে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-৫২ (বিলাদাত শরীফ- ৮০ হিজরী, বিছাল শরীফ- ১৫০ হিজরী)

সংখ্যা: ২৬৬তম সংখ্যা | বিভাগ:

 পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার সনদ এবং তার গুরুত্ব (২)

 সনদ দুই প্রকার:

(১) নিকটবর্তী সনদ: এমন সনদকে বলা হয়, যা যুগ হিসেবে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নিকটবর্তী। অর্থাৎ যার রাবীর সংখ্যা তুলনামূলক কম।

(২) দূরবর্তী সনদ: ঐ সনদকে বলা হয়, যা যুগ হিসেবে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার থেকে দূরে। অর্থাৎ ঐ সনদ যার  বর্ণনাকারীর সংখ্যা তুলনামূলক বেশী।

নিকটবর্তী সনদের দৃষ্টান্ত:

حدثنا ابو الوليد قال حدثنا شعبة قال اخبرنى عبد الله بن عبد الله بن جبير رضى الله تعالى عنه قال سمعت انسا رضى الله تعالى عنه عن النبى صلى الله عليه وسلم قال اية الايمان حب الانصار واية النفاق  بغض الانصار (رواه البخارى)

দূরবর্তী সনদের দৃষ্টান্ত:

حدثنا يحى بن حبيب الحارثى حدثنا خالد يعنى ابن الحارث حدثنا شعبة عن حضرت عبد الله بن عبد الله عن حضرت انس رضى الله تعالى عنه عن النبى صلى الله عليه وسلم انه قال حب الانصار اية الايمان وبغضهم اية النفاق (رواه المسلم)

উভয় হাদীছ শরীফে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ফরমানের কথা চিন্তা করলে পাওয়া যাবে উভয়টা এক; কিন্তু রাবীদের গণনা ভিন্ন। ইমাম বুখারী উনার সনদে চারজন রাবী রয়েছে। ইমাম মুসলিম রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার সনদে পাঁচজন। তাই ইমাম বুখারী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার সনদের রাবীর সংখ্যা কম হওয়ার কারণে নিকটবর্তী সনদ। আর ইমাম মুসলিম রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার সনদে রাবী বেশি হওয়ার কারণে অপেক্ষাকৃত দূরবর্তী সনদ।

হুকুম: হাদীছ শরীফ উনার জমহুর ইমামদের নিকট নিকটবর্তী সনদের মান দূরবর্তী সনদের চেয়ে বেশী। কেননা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার যুগ নিকটে হয়ে থাকে।

মুহাদ্দিছীনে কিরামগণ উনারা সর্বদা নিকটবর্তী সনদ অর্জনে  সচেষ্ট থাকতেন। এজন্য উনারা দূরে দূরে সফর করতেন এবং সেক্ষেত্রে ছাত্রদেরকে উৎসাহিত করতেন।

** ইমাম আহমদ বিন হাম্বল রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বলেন-

طلب الاسناد العالى سنة عمن سلف

অর্থ: নিকটবর্তী সনদ তালাশ ছলফে ছালিহীন উনাদের সুন্নত।

** ইমাম মুহম্মদ ইবনে আসলাম তুসী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি নিকটবর্তী সনদের ব্যাপারে বলতেন-

قرب الاسناد قرب الى رسول الله صلى الله عليه وسلم والقرب اليه قرب الى الله تعالى

অর্থ: “নিকটবর্তী সনদ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নিকটবর্তী হওয়ার নামান্তর। আর উনার নিকটবর্তী হওয়া মহান আল্লাহ পাক উনার নিকটবর্তী হওয়ার কারণ। (মুকাদ্দিমাতু ইবনুস সালাহ -১/১৫০)

ইমামুল মুসলিমীন, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামে আ’যম রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি যেরূপ নিকটবর্তী সনদে পবিত্র হাদীছ শরীফ বর্ণনা করেছেন সেরূপ নিকটবর্তী সনদে বর্ণনা করা কোনো ইমাম, মুজতাহিদ ও আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিমগণের পক্ষে সম্ভব হয়নি। সঙ্গত কারণে সকলেই উনাকে ইমামরূপে গ্রহণ করতে বাধ্য হয়েছেন। সুবহানাল্লাহ!

উল্লেখ্য যে, মু’তাবার ইমাম, মুজতাহিদ এবং আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনাদের বর্ণিত হাদীছ শরীফ সনদ ব্যতীতই গ্রহণযোগ্য ও আমলযোগ্য। এমনকি উনাদের বর্ণিত সনদবিহীন হাদীছ শরীফ ক্ষেত্র বিশেষ সাধারণ মানুষের বর্ণিত সনদযুক্ত হাদীছ শরীফ হতেও অধিক গুরুত্বপূর্ণ এবং শক্তিশালী দলীল। কেননা মু’তাবার ইমাম, মুজতাহিদ ও আউলিয়ায়ে কিরাম হওয়ার প্রধান শর্ত হচ্ছে- নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার তায়াল্লুক নিসবত মুবারক।

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৪৯

সাইয়্যিদুল আওলিয়া, মাহবূবে সুবহানী, কুতুবে রব্বানী, গওছুল আ’যম, মুজাদ্দিদুয যামান, ইমামুর রাসিখীন, সুলত্বানুল আরিফীন, মুহিউদ্দীন, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত বড়পীর ছাহিব রহমতুল্লাহি আলাইহি (৩)

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৫০

সাইয়্যিদুল আওলিয়া, মাহবূবে সুবহানী, কুতুবে রব্বানী, গওছুল আ’যম, মুজাদ্দিদুয যামান, ইমামুর রাসিখীন, সুলত্বানুল আরিফীন, মুহিউদ্দীন, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত বড়পীর ছাহিব রহমতুল্লাহি আলাইহি (৪)

হানাফী মাযহাবের আক্বাইদের ইমাম, ইমামু আহলিস সুন্নাহ ওয়াল জামায়াহ হযরত ইমাম আবু মানছূর আল মাতুরীদী রহমতুল্লাহি আলাইহি বিছাল শরীফ ৩৩৩ হিজরী