ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি-উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান-উনার দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৩৮

সংখ্যা: ১৯৭তম সংখ্যা | বিভাগ:

 

-মুহম্মদ সাদী

পূর্ব প্রকাশিতের পর

রাতের গভীরে অদৃশ্য স্থান থেকে গায়িবী

আওয়াজে দুআ’ কবুলের স্বীকৃতি

আল্লাহ পাক এবং সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, ছাহিবে লাওলাক, দলীলে কাবায়ে মাকসূদ, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-উনাদের লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ- উনাদের অন্তর্দৃষ্টি ও সূক্ষ্মদর্শিতা পরিপূর্ণরূপে নির্ভুল। অন্তর মুবারকে সর্বক্ষণ ইলহাম, ইলকা ও ইলমে লাদুন্নীর অভাবিত সংযোগে উনারা দায়িমীভাবে হিদায়েতের নূরের মধ্যে নিমজ্জিত থাকেন। সাধারণ মানুষ, এমনকি প্রাণীকুলের মধ্যেও ইলহাম হয়ে থাকে। ওলীআল্লাহ-উনাদের ইলহাম, ইলকা ও ইলমে লাদুন্নীর নির্যাস এক হলেও এগুলোর অর্থ ও তাৎপর্য ভিন্নতর। দার্শনিকদের দিব্যজ্ঞান ও মননশীলতা এবং ওলীআল্লাহ-উনাদের ইলহাম, ইলকা, কাশফ, স্বপ্ন, কারামত ও ইলমে লাদুন্নী এক নয়। ইলমে লাদুন্নীর সংযোগে উনাদের ইলহাম, ইলকা, কাশফ, স্বপ্ন কারামত সবসময় কুরআন শরীফ, হাদীছ শরীফ-এর নিয়ন্ত্রণে থাকে। অর্থাৎ লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ-উনাদের কোন বিষয়ই কখনো আল্লাহ পাক এবং উনার প্রিয়তম হাবীব হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-উনাদের ইচ্ছা ও পথের বিপরীত হয় না।

ওলীআল্লাহ-উনাদের যাহির ও বাতিন পরিপূর্ণরূপে পরিচ্ছন্ন ও অনুগত হওয়া সত্ত্বেও উনারা কখনোই উনাদের ইলহাম, ইলকা, কাশফ, স্বপ্ন ও কারামতকে সত্যের মাপকাঠি মনে করেন না। উনারা প্রাধান্য দিয়ে থাকেন উনাদের ইস্তিক্বামতকে।

والمخلصون على خطر عظيم

অর্থ: “নিষ্কলুষ অন্তরের অধিকারী ওলীআল্লাহ-উনারা অনুক্ষণ গভীর চিন্তা ও পেরেশানীতে নিপতিত”- এ হাদীছ শরীফ-এর নির্দেশনায় নৈকট্য হাছিলকারী ওলীআল্লাহগণ-উনারা, উনাদের ইলহাম, ইলকা, হাল, কারামত, স্বপ্ন ও কারামতসহ যাবতীয় বিষয় কুরআন শরীফ, হাদীছ শরীফ, ইজমা ও ক্বিয়াসের আলোকে নিগূঢ়ভাবে বিশ্লেষণ করে থাকেন। কুরআন শরীফ ও হাদীছ শরীফ-এর সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ হওয়া সত্ত্বেও উনাদের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কোন বিষয়কেই উনারা অন্যের উপর দলীল হিসেবে উপস্থাপন করেন না। উনারা যে দলীল-প্রমাণের উপর নির্ভর করেন, তা হলো- কুরআন  শরীফ, হাদীছ শরীফ, ইজমা ও ক্বিয়াস।

আল্লাহ পাক এবং সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-উনাদের পক্ষ থেকে ওলীআল্লাহ-উনাদের ইছলাহপ্রাপ্ত পবিত্র অন্তরে যে অদম্য প্রেরণার উদ্ভব হয়, কোন বিষয়ে অন্তরে অকাট্য ধারণার উদ্রেক হয় এবং এসবের নির্ভুলতায় অন্তরে যে নূর উদ্ভাসিত হয়, তার নাম ইলহাম, ইলকা। ওলীআল্লাহ-উনারা, উনাদের নিদ্রাকালে স্বপ্নে, জাগরণকালে ধ্যানে ও অনুসন্ধানে, অন্তরে কোন বিষয়ের প্রতিফলনে (কাশফে), অনুভবে এবং প্রত্যক্ষ অবলোকনে এবং বিশেষ অবস্থায় উনাদের হাল ও কারামতে কোনই বিভেদ নেই। উনাদের অনুভব, অনুসন্ধান এবং অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সবকিছুই আল্লাহ পাক এবং রসূলু রব্বিল আলামীন, রহমতুল্লিল আলামীন, রউফুর রহীম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-উনাদের একান্ত অনুগত।

যাহির ও বাতিনের ভিন্নতাও লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ-উনাদের ক্ষেত্রে অবান্তর। এরূপ মাক্বামের ওলীআল্লাহ-উনারা অত্যন্ত সতর্কতা ও সাবধানতায় পথ চলেন। গায়রুল্লাহ থেকে উনারা সম্পূর্ণরূপে মুক্ত- একথা নিশ্চিতভাবে জানা সত্ত্বেও গায়রুল্লাহ-এর অনিষ্টতা সম্পর্কে সাবধানতা অবলম্বনে উনারা সদা তৎপর। কারণ ইলহাম, ইলকা, কাশফ, স্বপ্ন, হাল ও কারামতে ফাঁদ পাতার কারসাজিতে ইবলিস সার্বক্ষণিকভাবে তার কুকর্মে লিপ্ত। সাধারণের ইলহাম, ইলকা, কাশফ ও স্বপ্নে থাকে শয়তানী প্রতারণা। আর ওলীআল্লাহ-উনাদের এসবে থাকে খোদায়ী নূর। থাকে ইলমে লাদুন্নী এবং রহমতুল্লিল আলামীন, মাশুকে মাওলা, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-উনার সদয় ইহসান এবং উনার সঙ্গে দায়িমী তায়াল্লুক ও নিসবত। এ পার্থক্যের কারণেই ওলীআল্লাহগণ-উনারা প্রকৃতই ওলীআল্লাহ এবং এসবের মিথ্যে দাবিদার সাধারণ মানুষ ও ভ-রা মূলতই পথভ্রষ্ট।

আল্লাহ পাক এবং উনার প্রিয়তম হাবীব হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-উনারা এবং উনাদের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিষয়াদি বাদে অন্যসব যাহিরী ও বাতিনী বিষয় অনুভব ও দর্শনে ওলীআল্লাহ-উনাদের দায়িমী অনাগ্রহ বিদ্যমান। অপ্রকাশ্য বিষয়ের দর্শনলাভে উনাদের কোন প্রবোধ এবং আকাঙ্খাজনিত বেদনার উপশম নেই। গোপন বিষয় হরহামেশা অনুভব ও দর্শনের আপেক্ষিক যোগ্যতা উনাদের মুবারক স্বভাবের সঙ্গেই সম্পৃক্ত। উনাদের বিবেচনায় কাঙ্খিত কামিয়াবীর সোপান পরিমাপে এসব গোপনীয় বিষয় জানা ও দেখার যোগ্যতা কোন গুরুত্ব বহন করে না। ওলীআল্লাহ-উনারা মূলত এমন বিষয় দেখার জন্য কাঙ্খিত, যা পরিপূর্ণরূপে দুনিয়ায় দেখা সম্ভব নয় এবং যা আক্বল, সমঝ ও ধারণার সীমাহীন ঊর্ধ্বে। এছাড়া অন্যসব বিষয় অনুভব ও দর্শনে উনাদের কোন অন্তরায় নেই। (চলবে)

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি-এর স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান-এর দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৩৫

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি-এর স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান-এর দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৩৬

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি-এর স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান-এর দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৩৭

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি-উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান-উনার দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৩৯

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি-উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান-উনার দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৪০