ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আউলিয়া, ছূফীয়ে বাত্বিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলা উনার দিকে প্রস্থান-২০৭ -মুহম্মদ সা’দী

সংখ্যা: ২৬৭তম সংখ্যা | বিভাগ:

পূর্ব প্রকাশিতের পর

মুবারক জীবন সায়াহ্নে এসে সার্বিক ক্ষেত্রে সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম আওলাদ আলাইহিস সালাম উনার অতুলনীয় কামিয়াবী প্রত্যক্ষ করে সাইয়্যিদুনা হযরত দাদা হুযূর ক্বিবলা কা’বা আলাইহিস সালাম তিনি পরম ইতমিনান:

 

আখাছছুল খাছ লক্ষ্যস্থল সূক্ষ্মদর্শী আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনাদের ফাযায়িল-ফযীলত, শান-মান, মর্যাদা-মাক্বাম সম্পর্কে সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিয়্যীন, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক  ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি পবিত্র হাদীছে কুদসী শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন:

الـمتحابون فى جلال لهم منابر من نور يغيطهم النبيون والشهداء.

অর্থ: “আমার জালালিয়ত উনার কারণে পারস্পরিক মুহব্বতকারী ওলীআল্লাহগণ উনারা হাশরের ময়দানে সম্মানিত নূরের তৈরী মিম্বর শরীফসমূহে উপবিষ্ট থাকবেন। উনাদের সীমাহীন শান-মান, মর্যাদা, মাক্বাম, প্রত্যক্ষ করে হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম এবং শুহাদায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনারা বিস্মিত হবেন।” সুবহানাল্লাহ!

ওলীয়ে মাদারযাদ, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত দাদা হুযূর ক্বিবলা কা’বা আলাইহিস সালাম উনার এবং উনার ছাহিবাতুল মুকাররামা, ওলীয়ে মাদারযাদ, আওলাদে রসূল, ক্বায়িম-মাক্বামে উম্মু রসূলিনা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, সাইয়্যিদাতুনা হযরত দাদী হুযূর ক্বিবলা কা’বা আলাইহাস সালাম উনার, অর্থাৎ উনাদের লখতে জিগার মহা সম্মানিত আওলাদ, ইমামুল উমাম, সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনাকে যে উনারা সীমাহীন মুহব্বত করতেন, তা’ প্রকাশের ভাষা নেই। সুবহানাল্লাহ!

উনাদের অপরিসীম মুহব্বত শুধু সম্মানিত আওলাদ হিসেবেই ছিলো না। বরং তিনি যে সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম, তিনি যে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার হাক্বীক্বী ক্বায়িম-মাক্বাম, তা উনারা ইলহাম-ইলকার মাধ্যমে পূর্বেই অবহিত হয়েছিলেন। মুবারক এ বিষয়টি রউফুর রহীম, রহমতুল্লিল আলামীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বহু পূর্বেই উনাদেরকে অনেকবার জানিয়েছেন। সুবহানাল্লাহ!

একইভাবে সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম, আন নি’মাতুল কুবরা আলাল আলাম, হাবীবুল্লাহ, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনিও যে উনাদেরকে সীমাহীন মুহব্বত করতেন, তাও কুল-কায়িনাতবাসীর অবোধ্য। উনারা তিন জনেই এবং উনাদের মহা-সম্মানিত আহাল ও ইয়াল শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনারা সকলেই উপরোক্ত পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার পরিপূর্ণ মিছদাক্ব। সুবহানাল্লাহ!

সূক্ষ্মদর্শী লক্ষ্যস্থল উচ্চ মর্যাদা ও মাক্বাম সম্পন্ন মাহবূব আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনারা উনাদের হায়াতে ত্বইয়্যিবায় যেমন বিশেষ শান মুবারকে অধিষ্ঠিত থাকেন, পবিত্র বিছালী শান মুবারক প্রকাশের পরেও তেমনি উনারা সর্বোচ্চ মর্যাদা ও মাক্বামলাভ করে থাকেন। ওলীয়ে মাদারযাদ, আওলাদে রসূল, ক্বায়িম-মাক্বামে সাইয়্যিদুনা হযরত আবূ রসূলিনা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, সাইয়্যিদুনা হযরত দাদা হুযূর ক্বিবলা কা’বা হযরতুল আল্লামা সাইয়্যিদ মুহম্মদ মুখলিছুর রহমান আলাইহিস সালাম এবং উনার সম্মানিতা ছাহিবাতুল মুকাররামা, ওলীয়ে মাদারযাদ, আওলাদে রসূল, ক্বায়িম-মাক্বাম সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মু রসূলিনা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, সাইয়্যিদাতুনা হযরত দাদী হুযূর ক্বিবলা কা’বা আলাইহাস সালাম উনারা দু’জনেই উনাদের পবিত্র বিছালী শান মুবারক প্রকাশের পর সীমাহীন মর্যাদা ও মাক্বামে অধিষ্ঠিত রয়েছেন। সুবহানাল্লাহ!

কিতাবে উল্লেখ রয়েছে: সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ হযরত খাজা মুইনুদ্দীন হাসান চিশতী সাঞ্জারী ছুম্মা আজমিরী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি পবিত্র বিছাল শরীফ গ্রহণের পর উনার প্রধান খলীফা, হাফিযে মাদারযাদ, সুলত্বানুল আরিফীন, হযরত বখতিয়ার কাকী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি মুবারক মুরাকাবায় দীদারে জানতে চান: “হে আমার সম্মানিত শায়েখ! আপনি কেমন আছেন”? (চলবে)

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদ যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৩৭ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী)

ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ ইমামে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-৫৩ (বিলাদাত শরীফ- ৮০ হিজরী, বিছাল শরীফ- ১৫০ হিজরী)

পঞ্চদশ হিজরী শতকের মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদুর রসূল, ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার সাইয়্যিদুনা মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার মহা সম্মানিতা আম্মা, আওলাদুর রসূল, সাইয়্যিদাতুনা আমাদের- হযরত দাদী হুযূর ক্বিবলা কা’বা আলাইহাস সালাম উনার সীমাহীন ফাদ্বায়িল-ফদ্বীলত, বুযূর্গী-সম্মান, মান-শান, বৈশিষ্ট্য এবং উনার অনুপম মাক্বাম সম্পর্কে কিঞ্চিৎ আলোকপাত-৫৭-মুহম্মদ সা’দী

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদুয যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৪৮ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী) ভারতে মুসলিম সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা (১)

ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইউস সুন্নাহ ইমামে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-৬৪ (বিলাদাত শরীফ- ৮০ হিজরী, বিছাল শরীফ- ১৫০ হিজরী)  মুতাহ্হার, মুতাহ্হির, সাইয়্যিদুনা হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের শান-মান  ও ফযীলত