খতমে নুবুওওয়াত প্রচার কেন্দ্র:  খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারীরা কাফির “ইসলামী শরীয়তের হুকুম মুতাবিক যারা মুসলমান থেকে খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারী সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত হয় যেমন-  কাদিয়ানী, বাহাই ইত্যাদি তাদের তওবার জন্য নির্ধারিত সময় ৩ দিন এরপর তওবা না করলে তাদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড।”

সংখ্যা: ১৯৪তম সংখ্যা | বিভাগ:

কাদিয়ানী রদ!

(ষষ্ঠ ভাগ)

(কুতুবুল ইরশাদ, মুবাহিছে আয’ম, বাহরুল উলূম, ফখরুল ফুক্বাহা, রঈসুল মুহাদ্দিছীন, তাজুল মুফাস্সিরীন, হাফিযুল হাদীছ, মুফতিউল আ’যম, পীরে কামিল, মুর্শিদে মুকাম্মিল হযরতুল আল্লামা মাওলানা শাহ্ ছূফী শায়খ মুহম্মদ রুহুল আমীন রহমতুল্লাহি আলাইহি কর্তৃক প্রণীত “কাদিয়ানী রদ” কিতাবখানা (৬ষ্ঠ খণ্ডে সমাপ্ত) আমরা মাসিক আল বাইয়্যিনাত পত্রিকায় ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ করছি। যাতে কাদিয়ানীদের সম্পর্কে সঠিক ধারণাসহ সমস্ত বাতিল ফিরক্বা থেকে আহ্লে সুন্নত ওয়াল জামায়াতের অনুসারীদের ঈমান-আক্বীদার হিফাযত হয়। আল্লাহ্ পাক আমাদের প্রচেষ্টায় কামিয়াবী দান করুন (আমীন)। এক্ষেত্রে তাঁর কিতাব থেকে হুবহু উদ্ধৃত করা হলো, তবে তখনকার ভাষার সাথে বর্তমানে প্রচলিত ভাষার কিছুটা পার্থক্য লক্ষণীয়)।

(ধারাবাহিক)

শাহ রফিউদ্দিন ছাহেব কেয়ামতনামায় লিখিয়াছেন;

খ্রীষ্টান জাতিরা পরাক্রান্ত হইয়া বহুরাজোর অধিকারী হইবে। এমতাবস্থায় তুরস্কের বাদশাহ একজন খ্রীষ্টানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ও অন্যদলের সহিত সন্ধি করিবেন। শত্রুদল কনস্টান্টিনোপল অধিকার করিয়া লইবে। তখন বাদশাহ নিজের শহর ত্যাগ করতঃ শামদেশে প্রবেশ করিবে। তৎপরে সহকারী খ্রীষ্টান দলের সহযোগিতায় শত্রু খ্রীষ্টান দলের বিরুদ্ধে ভয়ঙ্কর যুদ্ধ করিবেন। ইহাতে মুসলমান সৈন্যদল জয়ী হইবেন। শত্রুদল পরাজিত হওয়ার পরে একজন খ্রীষ্টান বলিবে, ক্রুশ পরাক্রান্ত হইয়া জয় লাভ করিয়াছেন। একজন মুসলমান তাহাকে প্রহার করিয়া বলিবে, দীন ইছলাম জয় যুক্ত ইহয়াছে। ইহাতে উভয় দলের মধ্যে যুদ্ধ উপস্থিত হইবে মুছলমান বাদশাহ শহীদ হইয়া যাইবেন। তখন খ্রীষ্টানদল শামদেশের অধিপতি হইবে ও বিরুদ্ধ খ্রীষ্টানদিগের সহিত সন্ধি করিবে। অবশিষ্ট মুসলমানগণ মদিনা শরিফে আশ্রয় গ্রহণ করিবেন। খ্রীষ্টানগণ খয়বরের নিকটস্থ স্থান পর্যন্ত আধিপত্য বিস্তার করিবে। এমাম মেহদী সেই সময় মদিনা হইতে মক্কা শরিফে যাইবেন। যখন তিনি হাজারে আছওয়াদ ও মাকামে-এবরাহিমের মধ্যস্থলে তওয়াফ করিতে থাকিবেন। আছমানের দিক হইতে শব্দ হইবে-ইনি খোদার খলিফা মাহদী।  তিনি ফাতেমা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা-এর বংশধর হইবেন। তাঁহার নাম মোহম্মদ ও তাঁহার পিতার নাম আব্দুল্লাহ্ হইবে। উনার কথায় মাঝে মধ্যে জড়তা প্রকাশ পাবে। কা’বা গৃহের দরওয়াজার সম্মুখে যে ধন ভা-ার প্রোথিত আছে তাহা তিনি বাহির করিয়া মুছলমানদিগের মধ্যে বিতরণ করিবেন। তিনি সৈন্য সামন্ত লইয়া দামেশ্কে উপস্থিত হইবেন, তখন খ্রীষ্টানেরা বহু সৈন্য সংগ্রহ করিয়া তাঁহার সঙ্গে যুদ্ধ করিতে উদ্যত হইবে। (চলবে)

খতমে নুবুওওয়াত প্রচার কেন্দ্র ইসলামী শরীয়ত উনার হুকুম মোতাবেক খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারীরা কাফির। যারা মুসলমান থেকে খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারী সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত। (যেমন- কাদিয়ানী, বাহাই ইত্যাদি) তাদের তওবার জন্য নির্ধারিত সময় ৩দিন। এরপর তওবা না করলে তাদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড

খতমে নুবুওওয়াত প্রচার কেন্দ্র খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারীরা কাফির “ইসলামী শরীয়তের হুকুম মুতাবিক যারা মুসলমান থেকে খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারী সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত হয় যেমন-  কাদিয়ানী, বাহাই ইত্যাদি তাদের তওবার জন্য নির্ধারিত সময় ৩ দিন এরপর তওবা না করলে তাদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড

কাদিয়ানী রদ!

খতমে নুবুওওয়াত প্রচার কেন্দ্র খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারীরা কাফির “ইসলামী শরীয়তের হুকুম মুতাবিক যারা মুসলমান থেকে খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারী সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত হয় যেমন-  কাদিয়ানী, বাহাই ইত্যাদি তাদের তওবার জন্য নির্ধারিত সময় ৩ দিন এরপর তওবা না করলে তাদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড।”

খতমে নুবুওওয়াত প্রচার কেন্দ্র-  খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারীরা কাফির “ইসলামী শরীয়তের হুকুম মুতাবিক যারা মুসলমান থেকে খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারী সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত হয় যেমন-  কাদিয়ানী, বাহাই ইত্যাদি তাদের তওবার জন্য নির্ধারিত সময় ৩ দিন এরপর তওবা না করলে তাদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড।”