খতমে নুবুওওয়াত প্রচার কেন্দ্র ইসলামী শরীয়ত উনার হুকুম মোতাবেক খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারীরা কাফির। যারা মুসলমান থেকে খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারী সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত হয় (যেমন- কাদিয়ানী, বাহাই ইত্যাদি) তাদের তওবার জন্য নির্ধারিত সময় ৩দিন। এরপর তওবা না করলে তাদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড (কাদিয়ানী রদ!)

সংখ্যা: ২৮৯তম সংখ্যা | বিভাগ:

(কুতুবুল ইরশাদ, মুবাহিছে আয’ম, বাহরুল উলূম, ফখরুল ফুক্বাহা, রঈসুল মুহাদ্দিছীন, তাজুল মুফাস্সিরীন, হাফিযুল হাদীছ, মুফতিউল আ’যম, পীরে কামিল, মুর্শিদে মুকাম্মিল হযরতুল আল্লামা মাওলানা শাহ্ ছূফী শায়েখ মুহম্মদ রুহুল আমীন রহমতুল্লাহি আলাইহি কর্তৃক প্রণীত ‘কাদিয়ানী রদ’ কিতাবখানা (৬ষ্ঠ খন্ডে সমাপ্ত)। আমরা মাসিক আল বাইয়্যিনাত শরীফ পত্রিকায় ইতিপূর্বে ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ করেছি। পাঠকদের অনুরোধে তা পুনরায় প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যাতে কাদিয়ানীসহ সমস্ত বাতিল ফিরক্বা থেকে সম্মানিত আহলে সুন্নত ওয়াল জামায়াত উনাদের অনুসারীদের ঈমান আক্বীদার হিফাযত হয়। মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদের প্রচেষ্টায় কামিয়াবী দান করুন। আমীন!

যদিও তখনকার ভাষার সাথে বর্তমানে ভাষার কিছুটা পার্থক্য লক্ষ্যণীয়।

মির্জার মাহদী দাবি খণ্ডন

(পূর্ব প্রকাশিতের)

(২৪) ইমাম রব্বানী মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার মকতুবাত শরীফ-এর দ্বিতীয় খণ্ডে ৬৭ মকতুবে ১৩২ পৃষ্ঠায় লিখেছেন-

وجماعت از نادانی  گمان کنند شخص را دعوی مہد ویت نمودہ بود از اہل ہند مہدی موعود  بودہ است پس بزعم اینہا مہدی گذشتہ است وفوت شدہ ونشان میدہند کہ قبرش در فرا است و در احادیث صحاح کہ بحد شہر ت بلکہ بحد تواتر معنی رسیدہ اند نکذیب این طائفہ است

چہ  ان سرور علیہ و علی الہ الصلوۃ  والسلام مھدی را علامت فومودہ است در  احادیث کہ  در حق ان شخص کہ معتقد ایشان است ان علامات مفقود اند. در  حدیث نبوی امدہ است علیہ وعلی الہ الصلوة والسلام کہ مھدی موعود بیرون اید و بر سروی پارہ ابرکہ بود دران ابر فرشتہ کہ ندا کند کہ این شخص مھدی است او را متابعت کنید

“একজন হিন্দুস্থানী লোক মাহদী হওয়ার দাবি করেছিল, একদল লোক অনভিজ্ঞতা বশতঃ তাকে প্রতিশ্রম্নত মাহদী ধারণা করেছে, তাদের ধারণায় মাহদী মৃত্যুপ্রাপ্ত হয়েছেন, উনার কবর ফারা নামক স্থানে নির্দ্ধারণ করেছে, ছিহাহ ছেত্তাহর যে পবিত্র হাদীছ শরীফসমূহ মশহুর বরং মুতাওয়াতের শ্রেণীভুক্ত হয়েছে, তৎসমস্ত এই দলের উপর অসত্যারোপ করতেছে। কেননা মহাসম্মানিত রসূল নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি মাহদী উনার জন্য পবিত্র হাদীছ শরীফ সমূহে যে সমস্ত চিহ্ন উল্লেখ করেছেন, উল্লেখিত হিন্দুস্থানি ব্যক্তির মধ্যে উক্ত চিহ্নগুলি পাওয়া যায় না। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র হাদীছ শরীফে উল্লেখিত হয়েছে, যখন প্রতিশ্রম্নত মাহদী প্রকাশিত হবেন, তখন উনার মস্তকের উপর একখণ্ড মেঘ উপস্থিত হবে, তার মধ্য হতে একজন ফেরেশতা ঘোষণা করে বলবেন- এ ব্যক্তি মাহদী, তোমরা উনার মতের অনুসরণ কর।

(চলবে)

খতমে নুবুওওয়াত প্রচার কেন্দ্র ইসলামী শরীয়ত উনার হুকুম মোতাবেক খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারীরা কাফির। যারা মুসলমান থেকে খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারী সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত হয় (যেমন- কাদিয়ানী, বাহাই ইত্যাদি) তাদের তওবার জন্য নির্ধারিত সময় ৩দিন। এরপর তওবা না করলে তাদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড

খতমে নুবুওওয়াত প্রচার কেন্দ্র ইসলামী শরীয়ত উনার হুকুম মোতাবেক খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারীরা কাফির। যারা মুসলমান থেকে খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারী সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত হয় (যেমন- কাদিয়ানী, বাহাই ইত্যাদি) তাদের তওবার জন্য নির্ধারিত সময় ৩দিন। এরপর তওবা না করলে তাদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড

কাদিয়ানী রদ!

খতমে নুবুওওয়াত প্রচার কেন্দ্র ইসলামী শরীয়ত উনার হুকুম মোতাবেক খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারীরা কাফির। যারা মুসলমান থেকে খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারী সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত হয় (যেমন- কাদিয়ানী, বাহাই ইত্যাদি) তাদের তওবার জন্য নির্ধারিত সময় ৩দিন। এরপর তওবা না করলে তাদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড

খতমে নুবুওওয়াত প্রচার কেন্দ্র: ইসলামী শরীয়ত উনার হুকুম মোতাবেক খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারীরা কাফির। যারা মুসলমান থেকে খতমে নুবুওওয়াত অস্বীকারকারী সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত হয় (যেমন- কাদিয়ানী, বাহাই ইত্যাদি) তাদের তওবার জন্য নির্ধারিত সময় ৩দিন। এরপর তওবা না করলে তাদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড