ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী উনার নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৮৬

সংখ্যা: ১৯২তম সংখ্যা | বিভাগ:

-হযরত মাওলানা মুফতী সাইয়্যিদ মুহম্মদ আব্দুল হালীম

মুহ্ইস সুন্নাহ লক্বব মুবারক প্রসঙ্গে

খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী উনার জিন্দাকৃত বা পুনঃপ্রচলন করা কতিপয় সুন্নতের বিবরণ:

দামি বা মূল্যবান পোশাক পরিধান করাও সুন্নত:

সামর্থ্য অনুযায়ী পোশাক পরিধান করাই খাছ সুন্নত। অধিক মূল্যমানের পোশাক পরিধানের সামর্থ্য থাকলে আল্লাহ পাক উনার নিয়ামতের শুকরিয়া আদায় করা যেমন সুন্নত তেমনি কম মূল্যমানের পোশাক পরিধান করতঃ ছবর করাও সুন্নত। আল্লাহ পাক উনার হাবীব, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বেশি মূল্যমানের পোশাকও পরিধান করেছেন। আবার কম মূল্যমানের পোশাকও পরিধান করেছেন। তিনি তো রাজা-বাদশাহ, আমীর-উমারাহ, ধনী-দরিদ্র, আলিম-জাহিল সকলের জন্যই আদর্শ। কাজেই যাদের দামি দামি পোশাক পরার সামর্থ্য আছে তাদের কম মূল্যের পোশাক পরিধান করা যেমন অনুচিত তেমনি যাদের সামর্থ্য নেই তারা তা পরিধানের আশা করাও ঠিক নয়। কারণ, তাতে আল্লাহ পাক এবং উনার হাবীব, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নাফরমানীর সম্ভাবনা থাকে।

উল্লেখ্য যে, যারা অর্থ-সম্পদশালী তাদের জন্য ভাঙ্গা আয়নায় মুখ দেখা, ভাঙ্গা চিরনী দ্বারা মাথা আচড়ানো, পাখি খাওয়া, ফল-ফলাদী খাওয়া, ত্রুটিযুক্ত জিনিসপত্র কেনা মাকরূহ। সেগুলো গরীব-দুঃখীদের খাবার, ব্যবহারযোগ্য আসবাবপত্র। সেগুলো তাদের ক্রয় ক্ষমতার আওতাধীন থাকে। ইসলাম সম্পর্কে অজ্ঞতা ও বিমুখতার কারণে হাল যামানায় অনেক মানুষের এই আক্বীদা বদ্ধমূল হয়েছে যে, যাঁরা ওলী-আউলিয়া হবেন, আল্লাহওয়ালা হবেন, সূফী সাধক হবেন তারা অতি মূল্যবান পোশাক পরিধান করতে পারবেন না। তাঁরা ডেরার ঘর, বেড়ার ঘরে থাকবেন। ছেঁড়া-ফাঁড়া অতি অল্প মূল্যের পোশাক পরবেন ইত্যাদি ইত্যাদি।

যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহইস্ সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী তাদের সেই বদ ধারণা, বদ্ আক্বীদার মর্মমূলে আঘাত করে সেই আক্বীদার বিলুপ্তি ঘটিয়েছেন। শিক্ষা দিয়েছেন অতীব মূল্যবান পোশাক পরিধান করাও যে সুন্নত তার তাজদীদ করে বিলুপ্ত সুন্নতকে জিন্দা করেছেন। তিনি বলেন, আল্লাহ পাক উনার হাবীব, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন,

احسنوا لباسكم

অর্থ: æতোমরা উত্তম পোশাক-পরিচ্ছদ ব্যবহার কর।” অপর একটি বর্ণনায় এসেছে

اذا اتاك الله مالا فلير اثرنعمة الله عليكم وكرامته-

অর্থ: আল্লাহ পাক যখন তোমাকে ধন-সম্পদ দান করবেন তখন তোমার মধ্যে সেই নিয়ামত, মেহেরবানী ও সম্মানের চি‎হ্ন প্রকাশ পাওয়া উচিত। অর্থাৎ তোমার সাধ্য-সামর্থ্য অনুযায়ী উত্তম পোশাক-পরিচ্ছদ পরিধান করা উচিত। (জামিউস্ সগীর-১/১৩৫, আখলাকুন্ নবী-১৫৩)

হযরত ইসহাক ইবনে আব্দিল্লাহ ইবনে হারিস রদ্বিয়াল্লাহ তায়ালা আনহু হতে বর্ণিত আছে,

ان النبى صلى الله عليه وسلم اشترى حلة بسبع وعشرين ناقة فلبسها.

অর্থ: æনিশ্চয়ই আল্লাহ পাক উনার হাবীব, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি সাল্লাম সাতাশটি উঠের বিনিময়ে এক সেট পোশাক খরিদ করেছিলেন এবং তা পরিধানও করেছিলেন।” (আখলাকুন নবী-১৭৪)

হযরত আনাস ইবনে মালিক রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু বলেন,

ان ذيزان اهدى الى النبى صلى الله عليه وسلم حلة اشتريت بثلا ثة وثلا ثين بعيرا فلبسها مرة.

অর্থ: æনিশ্চয়ই (হিমইয়ারের মুসলিম বাদশাহ) জুইয়াযান, আল্লাহ পাক উনার হাবীব, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে এমন এক সেট পোশাক হাদিয়া দিলেন যা তেত্রিশটি উটের বিনিময়ে খরিদ করা হয়েছিল। আর তিনি তা একবার মাত্র পরিধান করেছিলেন।” (আখলাকুন নবী-১৬৩) (চলবে)

মুত্বহ্হার, মুত্বহ্হির, আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, ক্বায়িম মাক্বামে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মাওলানা রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা হযরত সুলত্বানুন নাছীর আলাইহিস সালাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র নাম মুবারক উনার পূর্বে ব্যবহৃত “মুহইস সুন্নাহ” লক্বব মুবারক বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-১৮৯

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা, ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৭৪

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৭৫

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৭৬

ছাহিবুর রিদ্বওয়ান, আয়ায্যু উম্মাতিন নাবিয়্যি, আ’দালু উম্মাতিন নাবিয়্যি, ছাহিবুত্ তাক্বওয়া, মাহবুবুল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম- রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর নাম মুবারকের পূর্বে ব্যবহৃত লক্বব বা উপাধির তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ-৭৭