পবিত্র মাহে রজবুল হারাম শরীফ এবং উনার প্রাসঙ্গিক আলোচনা

সংখ্যা: ২৫১তম সংখ্যা | বিভাগ:

হিজরী সনের সপ্তম মাস সম্মানিত রজব। পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের মধ্যে বর্ণিত চারটি হারাম বা সম্মানিত মাসের মধ্যে সম্মানিত রজব মাস অন্যতম।

উক্ত সম্মানিত মাসটি বহু দিক থেকে সম্মানিত ও ফযীলতপূর্ণ হয়েছে। তন্মধ্যে সম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম এবং সম্মানিত আওলাদে রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের সম্মানিত বিলাদতী শান মুবারক, সম্মানিত বিছালী শান মুবারক এবং আরো বিশেষ বিশেষ সম্মানিত শান মুবারক সংঘটিত ও প্রকাশিত হওয়ার বিষয়সমূহ উল্লেখযোগ্য।

যেমন এ মাসের পহেলা তারিখ পবিত্র ইয়াওমুল জুমুআ শরীফ সাইয়্যিদুল আবা ওয়ার রিজাল, সাইয়্যিদুন নাস, ছাহিবুল ঈমান, ছাহিবুল জান্নাহ, আবূ রসূলিনা সাইয়্যিদুনা হযরত যাবীহুল্লাহ আলাইহিস সালাম উনার সাথে সাইয়্যিদাতুল উম্মাহাত ওয়ান নিসা, সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, ছাহিবাতুল ঈমান, ছাহিবাতুল জান্নাহ, উম্মু রসূলিনা সাইয়্যিদাতুনা হযরত বাররাহ আলাইহাস সালাম উনার আযীমুশ শান নিকাহিল আযীম শরীফ সম্পাদিত হয়। সুবহানাল্লাহ! অতঃপর উক্ত সম্মানিত রাতেই সুমহান রগায়িব শরীফ সম্পন্ন হয়। অর্থাৎ উক্ত সম্মানিত রাতেই নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত ওজূদ পাক নূরে হাবীবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত আব্বা আলাইহিস সালাম উনার পূত-পবিত্র জিসিম (দেহ) মুবারক থেকে উনার সম্মানিতা আম্মা আলাইহাস সালাম উনার খিদমত মুবারকে তাশরীফ নেন। সুবহানাল্লাহ! যার কারণে উক্ত রাত্রির ফযীলত শবে বরাত, শবে ক্বদর ইত্যাদি ফযীলতপূর্ণ রাত্রি অপেক্ষা অধিক ফযীলতপূর্ণ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। সুবহানাল্লাহ!

আবার এ মাসেরই দুই তারিখ ইয়াওমুস সাবত (শনিবার) নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত আব্বা সাইয়্যিদুনা হযরত যাবীহুল্লাহ আলাইহিস সালাম তিনি যমীনে বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন। সুবহানাল্লাহ! উক্ত দুই তারিখে আবার নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত লখতে জিগার নূরানী আওলাদ, সাইয়্যিদুল আবনা, ইবনুল আউওয়াল, সাইয়্যিদুনা হযরত ক্বাসিম আলাইহিস সালাম তিনি বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন। সুবহানাল্লাহ!

অতঃপর এ মাসের ২৭ তারিখ ইয়াওমুল ইছনাইনিল আযীম (সোমবার) রাত্রিতে সুমহান মি’রাজ শরীফ সংঘটিত হয়। উক্ত ফযীলতপুর্ণ একই তারিখে পবিত্র রগায়িব শরীফ অনুষ্ঠিত হয় যিনি যামানার লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ, যামানার সুমহান মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, জাব্বারিউল আউওয়াল, ক্বউইউল আউওয়াল, সুলত্বানুন নাছীর, সাইয়্যিদু আওলাদে রসূলিল্লাহ, নূরে মুকাররম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম উনার। অর্থাৎ তিনি উক্ত পবিত্র ২৭ শে রজব জুমুয়ার রাতে উনার সম্মানিতা আম্মা আলাইহাস সালাম উনার খিদমত মুবারকে তাশরীফ নেন। সুবহানাল্লাহ!

অর্থাৎ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এবং নূরে মুকাররাম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি একই মাসে উনারা উনাদের সম্মানিতা আম্মা আলাইহিমাস সালাম উনাদের খিদমত মুবারকে তাশরীফ নেন। সুবহানাল্লাহ!

এছাড়া সম্মানিত রজব মাস উনার ১৩ তারিখ ইয়াওমুল জুমুআ শরীফ যিনি ইমামুল আউওয়াল মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, আসাদুল্লাহিল গালিব, বাবুল ইলিম, আমীরুল মু’মিনীন, খলীফাতুল মুসলিমীন সাইয়্যিুদনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম তিনি সম্মানিত বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন। সুবহানাল্লাহ!

অতঃপর এ সম্মানিত মাসেই ১৪ তারিখ বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন যিনি ইমামুস সাদিস মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ, ইমামুল মুহসিনীন, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম জা’ফর ছাদিক্ব আলাইহিস সালাম তিনি।

উক্ত একই তারিখে বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন সুলত্বানুল হিন্দ, গরীবে নেওয়াজ, খাজায়ে খাজেগাঁ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা ছাহিব রহমাতুল্লাহি আলাইহি তিনি। সুবহানাল্লাহ! আবার উক্ত একই মাসের ৬ তারিখে তিনি বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন।

উল্লেখ্য, সম্মানিত রজব মাস নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং উনার পূত-পবিত্র সম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের পবিত্র সায়ানেহে উমরী মুবারক প্রকাশের বিশেষ ও উল্লেখযোগ্য মাস। সুবহানাল্লাহ! কেননা এ পবিত্র মাসে সম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সম্মানিত প্রথম স্তর নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত ওয়ালিদাইন শারীফাইন আলাইহিমাস সালাম উনারা সম্মানিত বিশেষ শান মুবারক প্রকাশ করেছেন। অনুরূপ সম্মানিত হযরত আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, আওলাদু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারাও উনাদের বিশেষ শান মুবারক প্রকাশ করেছেন। সুবহানাল্লাহ!

যার কারণে উনাদের সুমহান শান মুবারক প্রকাশের প্রতিটি তারিখ ও দিবসকে মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে “আইয়্যামুল্লাহ” হিসেবে ঘোষণা করেছেন। সুবহানাল্লাহ! উক্ত ফযীলতপূর্ণ দিনসমূহ পালন করার ব্যাপারে আদেশ মুবারক করা হয়েছে এবং উক্ত দিনসমূহ পালনে অশেষ ফযীলত, নিয়ামত, রহমত, নাজাত ও কামিয়াবী হাছিলের ব্যাপারে সুসংবাদও প্রদান করা হয়েছে। বর্ণিত রয়েছে, সম্মানিত রজব মাস উনার পহেলা রাতটি দুআ কবুলের খাছ রাত। প্রথম জুমুআর রাতটি সম্মানিত রগায়িব শরীফ উনার রাত এবং সাতাশ তারিখ রাতটি সম্মানিত মি’রাজ শরীফ উনার রাত। উক্ত সম্মানিত তিন রাতে পবিত্র মীলাদ শরীফ পাঠ করে বিশেষভাবে দুআ-মুনাজাত করা এবং উক্ত দিনসমূহে রোযা রাখা কর্তব্য।

সম্মানিত মাহে যিলহজ্জ শরীফ ও সম্মানিত মাহে মুর্হরম শরীফ এবং উনাদের আনুসঙ্গিক আলোচনা

পবিত্র মাহে রমাদ্বান শরীফ এবং উনার প্রাসঙ্গিক আলোচনা

পবিত্র মাহে শা’বান শরীফ এবং উনার প্রাসঙ্গিক আলোচনা

সম্পাদকীয়

মহাসম্মানিত শাহরুল আ’যম মাহে রবীউল আউওয়াল শরীফ ও উনার প্রাসঙ্গিক আলোচনা