মাহে জুমাদাল ঊলা ও জুমাদাল উখরা শরীফ এবং উনাদের প্রাসঙ্গিক আলোচনা

সংখ্যা: ২৫০তম সংখ্যা | বিভাগ:

-আল্লামা মুফতী সাইয়্যিদ শুয়াইব আহমদ

আরবী পঞ্চম মাস জুমাদাল ঊলা শরীফ। এ মাসটি সম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সাওয়ানেহে উমরী মুবারক আলোচনার বিশেষ মাস। সুবহানাল্লাহ! এ মাসেই বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন জাদ্দু রসূলিল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত আব্দুল মুত্তালিব আলাইহিস সালাম তিনি । সুবহানাল্লাহ!

প্রকাশ থাকে যে, ছাহিবুল বাত্হা ওয়া মাক্কাতাল মুকাররামাহ, মুস্তাজাবুদ দা’ওয়াত, সাইয়্যিদুল আজদাদ, সাইয়্যিদুনা হযরত জাদ্দু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি জুমাদাল ঊলা শরীফ মাসের সুমহান ২২ তারিখে বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন।

অতঃপর উক্ত সুমহান ২২ তারিখে সম্পাদিত হয় যিনি আবুল মু’মিনীন, সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, নূরুম মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, হাবীবাতুল্লাহ হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার আযীমুশ শান নিকাহিল আযীম শরীফ। সুবহানাল্লাহ!

আবার উক্ত ২২ তারিখ সিবতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে হযরত যুন নূরাইন আলাইহিমাস সালাম উনার বিছালী শান মুবারক প্রকাশের তারিখ। সুবহানাল্লাহ!

অতঃপর এ মাসেরই সুমহান ১১ তারিখ বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার লখতে জিগার, সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, উম্মু আবীহা, শাবীহাতু রসূলিল্লাহ, নূরুল আযীমাহ, খইরুল বারিয়্যাহ, সাইয়্যিদাতু বানাত আছছালিছাহ হযরত উম্মু কুলছূম আলাইহাস সালাম তিনি। সুবহানাল্লাহ!

অতঃপর এ মাসেরই ৯ তারিখ ইয়াওমুল ইছনাইনিল আযীম শরীফ (সোমবার) বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন মুজাদ্দিদে আ’যম সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার সম্মানিত হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার সম্মানিত শাহ দামাদ ছানী, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা হযরত হাদিউল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি। সুবহানাল্লাহ!

হিজরী সনের ষষ্ঠ মাস মাহে জুমাদাল উখরা। একাধিক কারণে এ মাসটিও সম্মানিত ও ফযীলতপ্রাপ্ত। বিশেষ করে এ মাসটি ফযীলত লাভের অন্যতম কারণ হচ্ছে যে, এ মাসের ২১ তারিখ অর্থাৎ ২১শে জুমাদাল উখরা শরীফ বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার লখতে জিগার সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, বিদআতুম মিন রসূলিল্লাহ, সাইয়্যিদাতুল বানাত, উম্মু আবীহা, সাইয়্যিদাতুনা বিনতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আল ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি।

অতঃপর এ মাসেরই ২০ তারিখ অর্থাৎ ২০ শে জুমাদাল উখরা শরীফ বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, বিদআতুম মিন রসূলিল্লাহ, শাবীহাতু রসূলিল্লাহ, সাইয়্যিদাতুল বানাত, উম্মু আবীহা, সাইয়্যিদাতুনা বিনতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আর রাবিআহ আলাইহাস সালাম তিনি। সুবহানাল্লাহ!

এছাড়া এ মাসটি ফযীলতপ্রাপ্ত হওয়ার পেছনে ২২ শে জুুমাদাল উখরা শরীফ তারিখ ও দিবসটিও উল্লেখযোগ্য। এ ফযীলতপূর্ণ তারিখ ও দিবসটিতে যিনি আফদ্বালুন নাস বা’দাল আম্বিয়া, খলীফাতু রসূলিল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম তিনি বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন। অতঃপর উক্ত তারিখে আমীরুল মু’মিনীন, খলীফাতুল মুসলিমীন, সাইয়্যিদুনা হযরত ফারূক্বে আ’যম আলাইহিস সালাম তিনি খিলাফত মুবারক গ্রহণ করেন। সুবহানাল্লাহ!

উল্লেখ্য, সাইয়্যিদুল আম্বিয়া  ওয়াল মুরসালীন, ইমামুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, খাতামুন নাবিয়্যীন, নূরুম মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উম্মত উনাদের অন্তর্ভুক্ত সকল হযরত নবী ও রসূল আলাইহিমুস সালাম উনারাও। উনাদের মধ্যে হযরত ইয়াহ্ইয়া আলাইহিস সালাম উনার এবং হযরত ঈসা রূহুল্লাহ আলাইহিস সালাম উনাদের বিলাদতী শান মুবারক ও বিছালী শান মুবারক প্রকাশের দিন সালাম তথা শান্তি অর্থাৎ রহমত, বরকত, নিয়ামত নাযিলের সুসংবাদ প্রদান করা হয়েছে পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে। তাহলে যে সকল সম্মানিত ব্যক্তিত্ব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পূত-পবিত্র ও সম্মানিত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের অন্তর্ভুক্ত; উনাদের বিলাদতী শান মুবারক ও বিছালী শান মুবারক প্রকাশের দিন কতবেশি রহমত, বরকত, নিয়ামত, সালাম বা শান্তি নাযিল হওয়ার কারণ হবে তা বর্ণনার অপেক্ষা রাখে না। কেননা উনারা হচ্ছেন যিনি রহমত, বরকত, নিয়ামত, মাগফিরাত, নাজাত, শাফায়াত, জান্নাত ইত্যাদির  যিনি মালিক নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক  ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারই সম্মানিত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম। সুবহানাল্লাহ!

কাজেই, উম্মতের জন্য ফরয হচ্ছে সম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশের তারিখে খুশি প্রকাশ করা। অত্যন্ত জওক-শওক ও সাখাওয়াতির সাথে দিনটি উৎযাপন করা, মাহফিল করা, উনাদের সাওয়ানেহে উমরী মুবারক আলোচনা করা, মীলাদ শরী¬ফ পাঠ করা এবং উনাদের উসীলায় রহমত-বরকত, নিয়ামত-মাগফিরাত, নাজাত ইত্যাদি প্রার্থনা করা।

বর্ণিত রয়েছে, সম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুহব্বত, খিদমত ও ছানা-ছিফত করা উম্মতের জন্য ফরয এবং তা জান্নাত, নাজাত ও কামিয়াবী হাছিলের কারণ। বিপরীতে উনাদের প্রতি বিদ্বেষ, বিরোধিতা ও সমালোচনা করা লা’নতগ্রস্ত ও জাহান্নামী হওয়ার কারণ।

 

মাহে যিলহজ্জ ও তার প্রাসঙ্গিক আলোচনা

মাহে মুহররমুল হারাম ও তার প্রাসঙ্গিক আলোচনা

মাহে রবীউল আউয়াল শরীফ ও তার প্রাসঙ্গিক আলোচনা -হযরত মাওলানা মুফতী সাইয়্যিদ শুয়াইব আহমদ

মাহে রবীউছ্ ছানী ও তার প্রাসঙ্গিক আলোচনা

মাহে জুমাদাল উখরা ও তার প্রাসঙ্গিক আলোচনা