সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদুয যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৫৪ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী)

সংখ্যা: ২৮৪তম সংখ্যা | বিভাগ:

সুলতানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার আওলাদ বা সন্তান রহমাতুল্লাহি আলাইহিম

: সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা শায়েখ হুসসামুদ্দীন রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনিও অনেক কারামত সম্পন্ন ওলীআল্লাহ ছিলেন। তিনি সর্বদা খ্বলিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার মহাসম্মানিত রসূল নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের মা’রিফাত মুহ্ববতে বিভোর থাকতেন। উনার সম্মানিত মাযার শরীফ কাসবার ‘সানবর’ গ্রামে অবস্থিত। তিনি সুলতানুল মাশায়িখ, রঈসুল মুহাদ্দিসীন, মাহবূবে ইলাহী হযরত খাজা নিযামুদ্দীন আউলিয়া রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার ছোহবত মুবারক লাভ করেছিলেন। তিনি সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার সবচেয়ে ছোট ছাহিবযাদা ছিলেন।

: সুলতানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদে যামান, সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার একমাত্র কন্যা সন্তান সাইয়্যিদা বিবি হাফিযা জামাল চিশতী রহমতুল্লাহি আলাইহা। উনার আহালের (স্বামী) নাম শায়েখ রাযী রহমতুল্লাহি আলাইহি। সাইয়্যিদা বিবি হাফিযা জামাল চিশতী রহমতুল্লাহি আলাইহা উনাকে সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি স্বয়ং নিজেই তা’লীম-তরবীয়ত দান করেন। তিনিও অনেক উচ্চ স্তরের ওলীআল্লাহ ছিলেন। তিনি নারী জাতির আদর্শ। সর্বদা নারীদেরকে তা’লীম-তরবিয়ত দান করতেন। সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার প্রচার প্রসারের জন্য বিশেষ খ্যাতি অর্জন করেছিলেন। উনার দুই জন ছেলে সন্তান ছিলেন। উনারা অল্প বয়স মুবারকে  দুনিয়ার যমীন থেকে বিদায় গ্রহণ করেন। উনাদের পবিত্র মাযার শরীফ সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার মাযার শরীফের পাশে অবস্থিত।

কারামত মুবারক

كَرَامَةٌ (কারামত) অর্থ: সম্মান, মর্যাদা, অলৌকিক ঘটনা।

হযরত আউলিয়ায়ে কিরাম রহমাতুল্লাহি আলাইহিম উনাদের মাধ্যমে প্রকাশিত অলৌকিক ঘটনাবলীকে কারামত বলা হয়। যা সংশ্লিষ্ট আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনাদের সীমাহীন মর্যাদা-মর্তবার বহিঃপ্রকাশ। প্রত্যেক হযরত আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনাদের কোন না কোন কারামত মুবারক রয়েছে। তবে ওলীআল্লাহ হওয়ার জন্য কারামত মুবারক প্রকাশ পাওয়া শর্ত নয়।

সুলতানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদে যামান, সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার অসংখ্য-অগণিত কারামত মুবারক রয়েছে। যা উনার সীমাহীন মর্যাদা-মর্তবা, বুযুর্গী-সম্মান মুবারক উনার বহিঃপ্রকাশ। আমরা আলোচ্য অংশে উনার কিছু কারামত মুবারক উল্লেখ করবো। যাতে খ্বলিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার এবং মহাসম্মানিত মহাপবিত্রতম হাবীব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের সন্তুষ্টি-রেযামন্দি মুবারক প্রত্যাশী ছূফী সাধকগণের ঈমানী কুওওয়াত (শক্তি) বৃদ্ধির কারণ হয়। উনারা জজবা বা অনুপ্রেরণা লাভ করতে পারেন। উনাদের রিয়াদ্বত-মাশাক্কাতের পথ প্রসারিত হয়। সুবহানাল্লাহ!

কারামত মুবারক-১

সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার প্রধান খলীফা সুলত্বানুল আরিফীন, তাজুল আশিকীন সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা কুতুবুদ্দীন বখতিয়ার কাকী রহমতুল্লাহি আলাইহি। তিনি বর্ণনা করেন, আমি আমার মহাসম্মানিত শায়েখ সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার সুদীর্ঘ ২০ বছর মহাপবিত্রতম ছোহবত মুবারক ইখতিয়ার করেছি। এই সুদীর্ঘ সময়ে উনাকে কখনো কারো প্রতি নারাজ হতে দেখিনি। সুবহানাল্লাহ!

একদিনের ঘটনা। আমি এবং খাদিম শায়েখ আলী রহমতুল্লাহি আলাইহি পবিত্র খানকা শরীফ হতে বাহিরে বের হলাম। এমন সময় হঠাৎ রাস্তার ওপার হতে একজন লোক আমাদের দিকে দৌড়ে আসলো। শায়েখ আলী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার কোর্তা মুবারক অনেক শক্ত করে ধরলো। টানাটানি করলো। অনেক উচ্চ-বাচ্চ করলো। অনেক অসদাচরণ করলো।

সুলতানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদে যামান, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার নিকট এ খবর পৌঁছলো। তিনি লোকটির নিকট এমন অসদাচরণের কারণ জিজ্ঞাসা করলেন। লোকটি বললো, উনি আমার নিকট ঋণ নিয়েছেন। তা পরিশোধ করছেন না। সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বললেন, তাকে ছেড়ে দাও। সে তোমার ঋণ পরিশোধ করে দিবে। লোকটি কোন কথাই শুনছে না। কারো কথায়ই মানছেনা।

সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি তার ব্যবহারে অত্যন্ত কষ্ট পেলেন। তিনি অনেক জালালী হয়ে স্বীয় শরীর মুবারক থেকে চাদর মুবারক খুললেন। তা যমীনের উপর বিছিয়ে দিলেন। আর সাথে সাথে গইব (অদৃশ্য) হতে অজস্র টাকা-পয়সা ঐ চাদর মুবারকের উপর পড়তে লাগলো। কিছুক্ষণের মধ্যে টাকা-পয়সার স্তুপ হয়ে গেল। সুবহানাল্লাহ!

সুলতানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদে যামান, সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি লোকটিকে বললেন, তোমার যা পাওনা আছে তা এখান থেকে নিয়ে নাও। তবে সাবধান! তোমার পাওনার অতিরিক্ত একটি পয়সাও নিবে না।

লোকটি ছিল লোভী। সে তার পাওনার চেয়ে অধিক টাকা তুলে নিলো। আর সাথে সাথে তার হাতটি অবশ হয়ে গেল। সে ব্যক্তি এ দৃশ্য দেখে  কাঁদতে লাগলো। সুলতানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদে যামান, সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার ক্বদম মুবারকে বুছা দিয়ে বার বার  ক্ষমা প্রার্থনা করতে লাগলো। তার আযীযি-ইনকেছারী (কাকুতি মিনতি) এবং অঝোর নয়নে কান্না দেখে সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার কমল হৃদয় মুবারক বিগলিত হলো। তিনি তাকে ক্ষমা করে দিলেন। সাথে সাথে লোকটি খালিছ তওবা করতঃ সুলতানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদে যামান, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার হাত মুবারকে বাইয়াত হলো। সুবহানাল্লাহ! (হযরত গরীবে নেওয়াজ পূর্ণাঙ্গ জীবনী-২৬৬)

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৪৯

সাইয়্যিদুল আওলিয়া, মাহবূবে সুবহানী, কুতুবে রব্বানী, গওছুল আ’যম, মুজাদ্দিদুয যামান, ইমামুর রাসিখীন, সুলত্বানুল আরিফীন, মুহিউদ্দীন, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত বড়পীর ছাহিব রহমতুল্লাহি আলাইহি (৩)

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৫০

সাইয়্যিদুল আওলিয়া, মাহবূবে সুবহানী, কুতুবে রব্বানী, গওছুল আ’যম, মুজাদ্দিদুয যামান, ইমামুর রাসিখীন, সুলত্বানুল আরিফীন, মুহিউদ্দীন, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত বড়পীর ছাহিব রহমতুল্লাহি আলাইহি (৪)

হানাফী মাযহাবের আক্বাইদের ইমাম, ইমামু আহলিস সুন্নাহ ওয়াল জামায়াহ হযরত ইমাম আবু মানছূর আল মাতুরীদী রহমতুল্লাহি আলাইহি বিছাল শরীফ ৩৩৩ হিজরী