সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদুয যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৫৯ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী)

সংখ্যা: ২৮৯তম সংখ্যা | বিভাগ:

সম্মানিত কারামত মুবারক (৯)

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদে যামান আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার একজন মুরীদ একদিন উনার খিদমত মুবারকে হাজির হলেন। তিনি তখন ইবাদত-বন্দেগীতে মশগুল ছিলেন। ইবাদত-বন্দেগী হতে ফারেগ হওয়ার পর তিনি সেই মুরীদের দিকে নজর দিলেন।

মুরীদ বললেন, হুযূর ক্বিবলা! বেয়াদবি ক্ষমা চাই। শহরের শাসক আমাকে বিনা কারণে শহর  ত্যাগ করার নির্দেশ দিয়েছে। আমি খুবই অস্থিরতার মধ্যে সময় অতিবাহিত করছি। মেহেরবানী করে আমাকে এই বিপদ থেকে রক্ষা করুন।

সুলত্বানুল হিন্দ সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি কিছুক্ষণ নীরব রইলেন। তারপর বললেন, তুমি ঘরে ফিরে যাও। সে তার কৃতকর্মের শাস্তি পেয়েছে। নির্দেশ মত মুরীদ ঘরে ফিরে এলো। পরে তিনি শুনতে পেলেন যে, শহরের শাসনকর্তা ঘোড়ার পিঠ থেকে পরে গিয়ে মারা গেছে। সুবহানাল্লাহ!

সম্মানিত কারামত মুবারক (১০)

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদে যামান, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি একদিন পবিত্র দরবার শরীফ হতে বের হয়ে ‘আনা সাগরের’ দিকে যাচ্ছিলেন। যখন আনা সাগরের নিকটবর্তী হলেন, তখন দেখতে পেলেন একটি বালক গাভীর কয়েকটি বাচ্চা মাঠে চড়াচ্ছে। তিনি ছেলেটিকে বললেন, হে ছেলে! আমাকে একটু দুধ পান করাতে পারবে?

বালকটি মনে মনে চিন্তা করলো, সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি নিশ্চয়ই রসিকতা করছেন। নাউযুবিল্লাহ! তাই সে বললো, গাভীর বাচ্চাগুলো তো অপ্রাপ্ত বয়স্ক। এগুলো থেকে দুধ পাওয়া যাবে কিভাবে? সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি মুচকি হাসি দিলেন। অতঃপর একটি গাভীর বাচ্চার দিকে ইশারা করলেন। বললেন, বৎস! আমি ঐ গাভীর বাচ্চাটির দুধ পান করবো।

বালকটি উনার কথা শুনে হাসতে লাগলো। তিনি বললেন, হাসছো কেন? একটি পাত্র নিয়ে গাভীর বাচ্চাটির নিকট যাও। নির্দেশ মুবারক শুনে বালকটি বিহবল হয়ে গেল। বাছুরটির নিকট গিয়ে দেখতে পেল যে, বাছুরটির বানে প্রচুর দুধ  জমেছে। বালকটি একটি পাত্র নিয়ে দুধ দোহন করতে লাগলো। পাত্র ভরে গেল। ঐ দুধ চল্লিশ জন লোক পেট ভরে পান করেছিল। সুবহানাল্লাহ!

এ ঘটনা দেখার পর বালকটি সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার ক্বদম মুবারকে লুটে পড়লো। আর আজীবন উনার খিদমত মুবারকে নিজেকে উৎসর্গ করলো। সুবহানাল্লাহ!

সম্মানিত কারামত মুবারক (১১)

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি একদিন ওয়াজ-নছীহত মুবারক করছিলেন। এক সময় উনার দৃষ্টি মুবারক ডান দিকে পড়ে গেল। সাথে সাথে তিনি সসম্মানে দাঁড়িয়ে গেলেন। অতঃপর কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে বসে গেলেন। লোকজনের নিকট উনার এভাবে দাঁড়ানো এবং বসা রহস্যজনক মনে হলো। মজলিস শেষে খাদিম ছাহিব উনাকে জিজ্ঞাসা করলেন, হুযূর ক্বিবলা! বেয়াদবী ক্ষমা চাই। আপনি একই মজলিসে কয়েকবার দাঁড়ালেন। আবার বসলেন। এর হিকমত কি? তিনি বললেন, ডান দিকে আমার সম্মানিত শায়েখ উনার রওজা শরীফ। যখন আমার দৃষ্টি ডান দিকে পড়ে গেল তখন তিনি আমার সামনে ভেসে উঠলেন। আমি তা’যীমের জন্য দাঁড়িয়ে গেলাম। এভাবে যতবার আমি ডান দিকে তাকিয়েছি ততবারই ঐ দৃশ্য দেখতে পেয়েছি। আর আমি ততবারই উনার তা’যীমের জন্য সম্মানের জন্য দাঁড়িয়েছি। সুবহানাল্লাহ!

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদ যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৪৬ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী)

ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইউস সুন্নাহ ইমামে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-৬২ (বিলাদাত শরীফ- ৮০ হিজরী, বিছাল শরীফ- ১৫০ হিজরী)

পঞ্চদশ হিজরী শতকের মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদুর রসূল, ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার সাইয়্যিদুনা মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার মহা সম্মানিতা আম্মা, আওলাদুর রসূল, সাইয়্যিদাতুনা আমাদের- হযরত দাদী হুযূর ক্বিবলা কা’বা আলাইহাস সালাম উনার সীমাহীন ফাদ্বায়িল-ফদ্বীলত, বুযূর্গী-সম্মান, মান-শান, বৈশিষ্ট্য এবং উনার অনুপম মাক্বাম সম্পর্কে কিঞ্চিৎ আলোকপাত-৬৬ -মুহম্মদ সা’দী

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আউলিয়া, ছূফীয়ে বাত্বিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান উনার দীদারে মাওলা উনার দিকে প্রস্থান-২১৬ -মুহম্মদ সা’দী

সুলত্বানুল হিন্দ, কুতুবুল মাশায়িখ, মুজাদ্দিদ যামান, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন হাসান চিশতী আজমিরী সাঞ্জারী রহমতুল্লাহি আলাইহি-৪৭ (বিলাদত শরীফ ৫৩৬ হিজরী, বিছাল শরীফ ৬৩৩ হিজরী)