আমীরুল মু’মিনীন হযরত সাইয়্যিদ আহমদ শহীদ বেরলভী আলাইহিস সালাম তিনি নিঃসন্দেহে আল্লাহ পাক উনার খাছ ওলী উনার প্রতি অপবাদকারী যালিম গং নিঃসন্দেহে গুমরাহ, বাতিল, লা’নতপ্রাপ্ত, জাহান্নামী ও সুন্নী নামের কলঙ্ক রেজাখানীরা আয়নায় নিজেদের কুৎসিত চেহারা দেখে নিক; ইসলামী শরীয়ার আলোকে একটি দলীলভিত্তিক পর্যালোচনা-৮

সংখ্যা: ২১৪তম সংখ্যা | বিভাগ:

প্রিয় পাঠক! কাফির-মুশরিক তথা ব্রিটিশ বেনিয়া এবং ওহাবীদের অপবাদের ধারাবাহিকতায় মৃত আহম্মক রেযা খাঁর অনুসারী গং আমীরুল মুমিনীন, আওলাদে রসূূল, সাইয়্যিদুনা হযরত শহীদ আহমদ বেরেলভী আলাইহিস সালাম উনার সুমহান ইলমের শানেও মারাত্মক অপবাদ আরোপ করেছে। এ সম্পর্কে বাতিল বদ আক্বিদাধারী রেযাখানী গুমরাহদের বক্তব্যে হলো- æতিনি পুঁথিগত বিদ্যাহীন ছিলেন, মক্তবের প্রাথমিক মৌলিক জ্ঞান লাভ করতেও অসমর্থ এমনকি মেধাশূন্য ছিলেন।” নাঊযুবিল্লাহ! মিন যালিক! আমরা অনেক কিতাব-পত্রে দেখিছি এমন বেয়াদবিমূলক, কুফরীমূলক কথাবার্তা স্বয়ং যিনি আখিরী নবী ও রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সুমহান শানেও এরা এবং এদের মদদকারী ইহুদী-নাছারা, মুশরিক গং বলে ও লিখে থাকে। অথচ বলার অপেক্ষা রাখেনা যে, উনার সুমহান নিছবত মুবারক-এর সম্মানার্থে সকলে ইলম হাছিল করে থাকে অর্থাৎ তিনিই যাকে যতটুকু ইলম বন্টন করেন সে ততটকুইু ইলমের অধিকারী হতে পারে। সুবহানাল্লাহ!

প্রকৃতপক্ষে আমীরুল মুমিনীন, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা হযরত শহীদ আহমদ বেরেলভী আলাইহিস সালাম উনাকে স্বয়ং নুরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনিই যাহিরী বাতিনী সকল প্রকার ইলম হাদিয়া করেছেন। সুবহানাল্লাহ! এ সর্ম্পকে পরে বিস্তারিত আলোকপাত করা হবে তবে তার আগে জেনে নিই, উনার প্রতি মিথ্যা অপবাদ আরোপকারী গুমরাহ সম্প্রদায়ের কলঙ্ক আহম্মক রেযা খাঁর বিদ্যার হাক্বীকত! উল্লেখ্য ব্রিটিশ বেনিয়া গং যাকে একবার টার্গেট করে তাদের ইসলাম ও মুসলিম বিদ্বেষী কাজ আঞ্জাম দেয়ার জন্য তখন তার শিক্ষা-দিক্ষা হতে শুরু করে সবকিছুতে তাকে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে মদদ দিতে থাকে। এজন্য দেখা যায়, কলঙ্কিত আহম্মক রেযা খাঁর প্রধান শিক্ষাগুরুই ছিলো, ভ- নবী মির্জা গোলাম আহম্মক কাদিয়ানীর আপন ভাই মির্জা গোলাম কাদের কাদিয়ানী। নাঊযুবিল্লাহ! এটার প্রমান রয়েছে ১৯৭২ সালে প্রকাশিত খোদ রেযাখানীদের মুখপত্র বলে কথিত æআল মিজান” নামক প্রকাশনায়। এ কুৎসিত বিষয়টি উপ-মহাদেশের সর্ব সাধারনের মাঝে যাহির হয়ে পড়লে রেযাখানী কাজ্জাব লেখক গং তাদের পরবর্তী লেখালিখিতে মির্জা গোলাম আহম্মক কাদিয়ানীর আপন ভাইয়ের নামকে মির্জা গোলাম কাদির বেগ বলে প্রচার চালাচ্ছে। এর দ্বারা সহজেই প্রমানিত হয় ব্রিটিশ বেনিয়া গং পরিকল্পিতভাবে ভ- নবী কাদিয়ানীর সমগোত্রীয় হিসেবে আহম্মক রেযা খাঁকে প্রশিক্ষন দেয়ার জন্য মির্জা গোলাম আহম্মক কাদিয়ানীর ভাইকে নিযুক্ত করেছিলো নাঊযুবিল্লাহি মিন যালিক! বলা-বাহুল্য সে উপযুক্তভাবেই হক্বের বিরোধিতায় আহম্মক রেযা খাঁকে প্রশিক্ষন দিয়েছিলো। আর বর্তমানে দেশ-বিদেশের তাবৎ রেযাখানী ফিরকার অনুসারী গং শিক্ষা-দিক্ষা বিনোদন লাভ করার জন্য মাধ্যম হিসেবে গ্রহন করেছে ইহুদী-নাছারা, মুশরিকদের পাতানো ফাঁদ হারাম টেলিভিশন চ্যানেলকে। বর্তমানে এরা, নূর টিভি, উম্মাহ টিভি, তাকবীর টিভি, পাঞ্জাবী মাদানী টিভি, কিউ টিভিসহ বিভিন্ন হারাম টিভি চ্যানেলে বেপর্দা বেশরা হয়ে তাদের কুফরী শিরকীর বীজ বপন করে যাচ্ছে। নাঊযুবিল্লাহ! এই হচ্ছে গুমরাহ বাতিল রেযাখানী সম্প্রদায়ের লোকজনের শিক্ষার মাধ্যম। অর্থাৎ এক কথায় মালউন ইবলিস শয়তানই হলো তাবৎ রেযাখানীদের কুফরী বিদ্যা অর্জনের মাধ্যম। তাহলে এদের পক্ষে কি করে সম্ভব, নববী নিছবতে, খোদায়ী ইলমে গণী, নববী ইলমে ধনী, মাদারজাত ওলী, সুলতানুল আওলিয়া, আমিরুল মুমিনীন সাইয়্যিদুনা হযরত শহীদে আযম বেরেলভী আলাইহিস সালাম উনার সুমহান ইলমী শান সর্ম্পকে জানা শুনা এবং বুঝা। প্রকৃতপক্ষে এটা তাদের পক্ষে কস্মিনকালেও সম্ভব নয়! কারণ এদের নাপাক দিলে অনন্তকালের তরে লানতের মহড় পড়ে গেছে।

-মুহম্মদ সালামাতুল্লাহ ইসলামাবাদী

প্রকাশ্যে বাহাসের আহবান

আমিরুল মুমিনীন, আওলাদে রসূল, শহীদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত শহীদ আহমদ বেরলভী আলাইহিস সালাম উনাকে ওহাবী বলে অপপ্রচারকারীদেরকে মুহম্মাদীয় জামিয়া শরীফ গবেষনা কেন্দ্র, রাজারবাগ শরীফ হতে শর্ত সাপেক্ষে প্রকাশ্যে বাহাসের আহবান জানানো যাচ্ছে। অপপ্রচারকারীদেরকে প্রকাশ্যে জাতীয় পত্র-পত্রিকায় ঘোষনা দিয়ে বাহাসের আহবান গ্রহনের জন্য বলা হচ্ছে।

যুগের আবূ জাহিল, মুনাফিক ও দাজ্জালে কায্যাবদের বিরোধিতাই প্রমাণ করে যে, রাজারবাগ শরীফ-এর হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী তিনি হক্ব। খারিজীপন্থী ওহাবীদের মিথ্যা অপপ্রচারের দাঁতভাঙ্গা জবাব-৮১

ভ্রান্ত ওহাবী মতবাদ প্রচারের নেপথ্যে-৩০

চাঁদ দেখা ও নতুন চন্দ্রতারিখ নিয়ে প্রাসঙ্গিক আলোচনা-৪৯

আমীরুল মু’মিনীন হযরত সাইয়্যিদ আহমদ শহীদ বেরলভী আলাইহিস সালাম তিনি নিঃসন্দেহে আল্লাহ পাক উনার খাছ ওলী উনার প্রতি অপবাদকারী জালিম গং নিঃসন্দেহে বাতিল, গুমরাহ, লানতপ্রাপ্ত, জাহান্নামী ও সুন্নী নামের কলঙ্ক  রেজাখানীরা আয়নায় নিজেদের কুৎসিত চেহারা দেখে নিক ॥ ইসলামী শরীয়ার আলোকে একটি দলীলভিত্তিক পর্যালোচনা-২

গোটা দেশবাসীকে সম্পূর্ণ অবহিত করে ট্রানজিট চুক্তি না করলে এবং দেশবাসীর সম্মতিতে না করলে কথিত ট্রানজিট চুক্তি হবে দেশবাসীর সাথে সম্পূর্ণ বিশ্বাসঘাতকতা করে দেশ বিক্রির শামিল যা সম্পূর্ণ অসাংবিধানিক এবং অগ্রহণযোগ্য