ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, হাকিমুল হাদীছ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইস সুন্নাহ ইমামে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আবূ হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি-২০ (বিলাদাত শরীফ- ৮০ হিজরী, বিছাল শরীফ- ১৫০ হিজরী)

সংখ্যা: ২৩৩তম সংখ্যা | বিভাগ:

শায়েখ বা মুর্শিদ ক্বিবলা উনার প্রতি আদব প্রদর্শন

ইমামুল মুসলিমীন, ইমামে আ’যম রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার শায়েখ বা মুর্শিদ ক্বিবলা ছিলেন আহলে বাইত আলাইহিমুস সালাম উনাদের অন্যতম ইমাম। একদিকে শায়েখ বা মুর্শিদ ক্বিবলা অপরদিকে আহলে বাইত শরীফ অলাইহিমুস সালাম। উভয় দিক থেকেই মহাসম্মানের অধিকারী। আহলে বাইত এবং আওলাদে রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের প্রতি আদব প্রদর্শন করার যে নির্দেশ মুবারক পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র হাদীছ শরীফে এসেছে, তা তিনি হুবহু পালন করেছেন তিনি। সুবহানাল্লাহ!

সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিয়্যীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-

احبوا الله لـما يغذوكم من نعمة واحبونى لحب الله واحبوا اهل بيتى لحبى

অর্থ: “তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনাকে মুহব্বত করো। কেননা তিনি তোমাদেরকে রিযিক তথা খাদ্য দান করেন। মহান আল্লাহ পাক উনার মুহব্বত পাওয়ার জন্য আমাকে মুহব্বত করো। আর আমার মুহব্বত পাওয়ার জন্য আমার আহলে বাইত, (আওলাদে রসূল) উনাদেরকে মুহব্বত করো।” (তিরমিযী শরীফ)

তিনি আরো ইরশাদ মুবারক করেন,

الشيخ لقومه كالنبى فى امته

অর্থ: শায়েখ বা মুর্শিদ ক্বিবলা ক্বওম তথা মুরীদের কাছে সেরূপ সম্মানিত, অনুসরণীয়-অনুকরনীয় যেমন হযরত নবী আলাইহিমুস সালামগণ উনারা উনাদের উম্মতের নিকট সম্মানিত, অনুসরণীয়-অনুকরণীয়।”

তিনি আরো ইরশাদ মুবারক করেন-

بجلوا الـمشائخ فان تبجيل الـمشائخ من اجلال الله تعالى. فمن لـم يبجلهم فليس منا.

অর্থ: “তোমরা শায়েখগণ উনাদেরকে সম্মান করবে। কেননা উনাদের সম্মান করা মহান আল্লাহ পাক উনাকেই সম্মান করা অন্তর্ভুক্ত। কাজেই, যাঁরা উনাদেরকে সম্মান করেনা তারা আমাদের দলভুক্ত না। (মিশকাতুল আনওয়ার-১৬৮, মুস্তাদরাকে হাকিম-২/৭৪)

ইমামুল মুসলিমীন, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ দ্বীন, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আ’যম রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ, পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের পরিপূর্ণ অনুসরণকারী। তিনি একটি মুস্তাহাব-সুন্নত মুবারক আদায় না হওয়ার কারণে বিশ বছরের পবিত্র নামায দোহরিয়ে (পুনরায়) আদায় করেছিলেন। সুবহানাল্লাহ!

উল্লেখ্য, পায়ের আঙ্গুলগুলো নিচের দিক দিয়ে খিলাল করা মুস্তাহাব, সুন্নতে যায়িদা। তিনি বিশ বছর যাবত উপর দিক দিয়ে খিলাল করেছিলেন। যখন পুর্ণ তাহক্বীক হলো যে, আঙ্গুলের নিচের দিক দিয়ে খিলাল সুন্নাত তখন তিনি পূর্বে আদায়কৃত পবিত্র নামাযগুলো দোহরিয়ে নিলেন। সুবহানাল্লাহ! (জামিউর রুমুজ)

কাজেই পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনার কিরূপ অনুসরণকারী তিনি ছিলেন তা সহজেই অনুমেয়।

তিনি উল্লিখিত পবিত্র আয়াত শরীফ এবং পবিত্র হাদীছ শরীফগুলোর পরিপূর্ণ হক্ব আদায় করেছেন। নি¤েœর ওয়াকিয়া থেকে আরো সুস্পষ্ট হয়েছে। হযরত ইমামে আ’যম রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি অত্যন্ত আদব-ইহতিরাম ও গুরুত্বের সাথে দর্স (পাঠদান) দিতেন। উনার দরসে হাজার হাজার তলিবুল ইলম (ইলিম অন্বেষণকারী) মুরীদ, মুতাকিদ উপস্থিত থাকতেন। এমনকি একদিন দর্স দেয়ার সময় একটি সাপ এসে উনার দর্সগাহে প্রবেশকরতঃ উনাকে পর পর ছয়বার কামড় দিলো। পরিশেষে সপ্তমবার খুব জোড়ে কামড় দেয়ার পর সাপটি মারা গেলো। তা’লীম শেষ হলো। কেউ কোনো কথা-বার্তা বলার সাহস করলো না। সবাই চলে গেলো। উনার একজন ঘনিষ্ঠ ছাত্র জিজ্ঞাসা করলেন, হুযূর! বেয়াদবী ক্ষমা চাই। আজকে একটা আশ্চর্যজনক ঘটনা দেখতে পেলাম। একটা সাপ এসে আপনাকে পর পর সাত বার কামড় দিয়ে সাপটিই মারা গেলো। এর কারণ কি? তিনি বললেন, সাপটি ছয়বার কামড় দিয়ে তার বিষ আমার শরীর মুবারকে প্রবেশ করতে না পেরে গোসসা করে সে সপ্তমবার খুব জোড়ে কামড় দিয়েছিলো। তবুও তার বিষ আমার শরীরে প্রবেশ করাতে পারেনি। বরং আমার শরীরে মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার যে মুহব্বত ছিলো তা সাপের ভিতর প্রবেশ করেছে। কিন্তু সাপের পক্ষে তা বরদাস্ত (সহ্য) করা সম্ভব হয়নি। ফলে সাপটি মারা গেছে। সুবহানাল্লাহ!

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি-এর স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান-এর দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৩৬

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি-এর স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান-এর দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৩৭

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি-উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান-উনার দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৩৮

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি-উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান-উনার দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৩৯

ওলীয়ে মাদারজাদ, মুসতাজাবুদ্ দা’ওয়াত, আফযালুল ইবাদ, ছাহিবে কাশফ্ ওয়া কারামত, ফখরুল আওলিয়া, ছূফীয়ে বাতিন, ছাহিবে ইস্মে আ’যম, লিসানুল হক্ব, গরীবে নেওয়াজ, আওলাদে রসূল, আমাদের সম্মানিত দাদা হুযূর ক্বিবলা রহমতুল্লাহি আলাইহি-উনার স্মরণে- একজন কুতুবুয্ যামান-উনার দীদারে মাওলার দিকে প্রস্থান-১৪০