মন্তব্য প্রতিক্রিয়া: ‘আল বাইয়্যিনাত যে কথিত ১২টি কালো তালিকাভুক্ত সংগঠন থেকে সম্পূর্ণ আলাদা সে সম্পর্কে কতিপয় ব্যক্তিদের উদ্ধৃতি: * হক্বের একমাত্র ঝাণ্ডাবিহীন ‘আঞ্জুমানে আল বাইয়্যিনাত’কে জঙ্গি অপবাদ দিয়ে রিপোর্ট প্রকাশ করার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে -আওয়ামী ওলামা লীগ * ইসলামিক ফাউন্ডেশন-এর ডিজি’র প্রতিক্রিয়া- হযরত হাজী ইমদাদুল্লাহ মুহাজিরে মক্কী রহমতুল্লাহি আলাইহি, সাইয়্যিদ আহমদ বেরেলভী রহমতুল্লাহি আলাইহি-এর তরীক্বায়ই চলছে ‘আল বাইয়্যিনাত’। ‘আল বাইয়্যিনাত’ জামাতি-জঙ্গি, ধর্মব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে যে সাহসী পদক্ষেপে কাজ করছে তা আমরাও পারি না * স্থানীয় সাংসদ রাশেদ খান মেনন এমপি’র প্রতিক্রিয়া-‘আল বাইয়্যিনাত’ সম্পর্কে মন্তব্য করার আগে প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ স্থানীয় সাংসদের কাছে একবার জিজ্ঞাসা করারও প্রয়োজন মনে করেননি দীর্ঘদিন যাবত জঙ্গিবাদ, মৌলবাদের বিরুদ্ধে ‘আল বাইয়্যিনাত’-এর লেখালেখি দেখে আসছি- (বিস্তারিত পড়ৃন দৈনিক আল ইহসান-২৬.০৪.০৯ ঈসায়ী)

সংখ্যা: ১৮৬তম সংখ্যা | বিভাগ:

* ‘আল বাইয়্যিনাত’কে কালো তালিকাভুক্ত করায় বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগ নেতৃবৃন্দের ক্ষোভ প্রকাশ ‘আল বাইয়্যিনাত’কে কথিত কালো তালিকার ঊর্দ্ধে জঙ্গিবাদ, জামাত বিরোধী শক্ত কার্যক্রমের জন্য উপযুক্ত মূল্যায়নের আহবান জঙ্গিবাদ-জামাত বিরোধী ‘আল বাইয়্যিনাত’কে কালো তালিকাভুক্ত থেকে এখনই উইথড্রো করা উচিত জামাতী গোয়েন্দা কর্মীরা ‘আল বাইয়্যিনাত’-এর নামে সম্পূর্ণ মিথ্যা রিপোর্ট দিচ্ছে  – মাওলানা মুহম্মদ আবুল হাসান শরীয়তপুরীসাধারণ সম্পাদক-বাংলাদেশ আাওয়ামী উলামা লীগ

* ‘আল বাইয়্যিনাত’কে কালো তালিকাভুক্ত করার তীব্র প্রতিবাদ ও জামাতী গোয়েন্দা ষড়যন্ত্র উদঘাটনের আহ্বান জানাই  -মুহম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ছূফীবাদী

-সাবেক মহাসচিব ও বর্তমান সহসভাপতি বাংলাদেশ ওলামা লীগ।

* ‘আল বাইয়্যিনাত’কে জঙ্গিবাদ সংশ্লিষ্টতা বা কালো তালিকাভুক্ত করা আদৌ বোধগম্য নয়

-মুহম্মদ আব্দুল লতিফ

-উপদেষ্টা, বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগ।

(বিস্তারিত পড়ৃন দৈনিক আল ইহসান-২৬.০৪.০৯ ঈসায়ী)

‘দৈনিক আল ইহসান’ ও ‘মাসিক আল বাইয়্যিনাত’-এর সম্পাদক সাহেবের

সাথে মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন-এর টেলি সাক্ষাতকার-

‘আল বাইয়্যিনাত’ সম্পর্কে জঙ্গি বলার কোনো প্রমাণ আমাদের কাছে নেই

‘আল বাইয়্যিনাত’ ও ‘দৈনিক আল ইহসান’ জঙ্গিবাদ ও ধর্মব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে যেভাবে নিবেদিত ও নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে সময়ই তার সঠিক মূল্যায়ন করবে -মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন

আল ইহসান প্রতিবেদন: গত শুক্রবার কয়েকটি টিভি চ্যানেলে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম সোহেল তাজ বিবৃত ১২টি জঙ্গি সংগঠনের মধ্যে ‘উলামা আঞ্জুমানে আল বাইয়্যিনাত’-এর নামে ‘আল বাইয়্যিনাত’কে জঙ্গি সংগঠন তালিকাভুক্ত প্রকাশ করায় হতবাক হয়ে যান গোটা দেশবাসী।

কারণ, ‘আল বাইয়্যিনাত’ তথা ‘রাজারবাগ দরবার শরীফ’ শুধু ’৭১- এই মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে কাজ করেনি;

মুক্তিযুদ্ধোত্তর সময় থেকেই এ শক্তি জামাতী কওমী, খারিজীসহ তাবত ধর্মব্যবসায়ী তথা মৌলবাদ, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে

ইসলামী দৃষ্টিকোণ থেকে, ইসলামের আলোকে ধর্মপ্রাণ মানুষদের চরমভাবে উজ্জীবিত করে আসছে।

 * ‘আল বাইয়্যিনাত’ সে পত্রিকা যার প্রতি সংখ্যায় জামাতী, কওমী, মৌলবাদী, জঙ্গিদের বিরুদ্ধে তীব্র ও জোরালো এবং দলীলভিত্তিক লেখা থাকে।

 * ‘আঞ্জুমানে আল বাইয়্যিনাত’-এর উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিটি মাহফিলে জামাত-জোট, কওমী-জঙ্গিদের বিরুদ্ধে বলা হয়ে থাকে।

 সেজন্য বিগত জামাত-জোট সরকারের আমলে ‘আল বাইয়্যিনাত’-এর অনেক মাহফিলে জামাত-জোট-জঙ্গিরা হামলা করেছে। গাড়ি ভাংচুর করেছে। পত্র-পত্রিকায় তার অনেক খবরও এসেছে।

 * এদিকে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে ‘দৈনিক আল ইহসান’ গত তিন বছর ধরে নিয়মিত নিরলস ও নিবেদিতভাবে এবং তীব্র ও জোরালো ভাষায় লিখে যাচ্ছে।

যার প্রেক্ষিতেই আজকে জামাত-জোটের বিরুদ্ধে সাধারণ ধর্মপ্রাণদের তীব্র ক্ষোভ এবং ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান। এবং যার প্রেক্ষিতে আজকের মহাজোটের মহাবিজয়।

 এদিকে মহাজোট ক্ষমতায় আসার পরও ‘আল বাইয়্যিনাত’ ও ‘দৈনিক আল ইহসান’ জোরালো ভাষায় ও দীপ্ত পদক্ষেপে জঙ্গি-জামাতীদের হাক্বীক্বত উন্মোচন করে যাচ্ছে ও প্রতিরোধ করে যাচ্ছে।

 * একমাত্র ‘দৈনিক আল ইহসান’ই উল্লেখ করেছে যে, শিবির কর্মীরাই খোলস পাল্টিয়ে ছাত্রলীগে ঢুকে, কূটকৌশলে দুই গ্রুপ করে এবং কূট প্রক্রিয়ায় উভয়পক্ষে মারামারি লাগিয়ে দেয়।

* জঙ্গিদের ষাটভাগই জামাত এবং জঙ্গিদের সাথে জামাতী কমওীদের রয়েছে গভীর কানেকশন- সে তথ্য ‘আল বাইয়্যিনাত’ ও ‘দৈনিক আল ইহসান’-এই দলীল-প্রমাণ সাপেক্ষে প্রকাশিত হয়েছে।

 * আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ বিবৃত ‘কওমী মাদ্রাসাগুলো জঙ্গিবাদের প্রজননকেন্দ্র’ এ বক্তব্যের পক্ষে একমাত্র ‘দৈনিক আল ইহসান’ই ‘পনের কিস্তি’ ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

 * জামাতী-কওমীদের রাজনৈতিক ক্যান্টনমেন্টরূপে আর ব্যবহৃত না হওয়ার জন্য খতীব সালাহ উদ্দীন সাহেবের পক্ষে প্রবল জনমত গড়ে তুলেছে এবং শক্ত পদক্ষেপ নিয়েছে আঞ্জুমানে আল বাইয়্যিনাত।

 * ইফা’র ডিজির বিরুদ্ধে কওমী-জঙ্গিরা যে ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছিলো একমাত্র ‘দৈনিক আল ইহসান’ই তার শক্ত জবাব দিয়ে মুসল্লীদের সঠিকপথে পরিচালিত করেছে।

 * যে সব কওমী-জঙ্গি নেতারা বলছে যে, তারা জঙ্গিবাদের সাথে সম্পৃক্ত নয় তাদের জঙ্গিবাদের তথ্য ‘আল ইহসান’-এ প্রতিদিন প্রকাশ পাচ্ছে।

 অর্থাৎ ‘দৈনিক আল ইহসান’ ও ‘আল বাইয়্যিনাত’ জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে যা করেছে তাতে সত্যিকার ইসলামের ভাবমর্যাদা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত হচ্ছে যার জন্য বর্তমানে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে সরকারের অনেক মন্ত্রী, এমপি তথা অনেক সরকারী কর্মচারী ‘দৈনিক আল ইহসান’-এর প্রশংসায় মুখরিত।

 ‘দৈনিক আল ইহসান’-এর প্রশংসায় মুখরিত শ্রমিক লীগ, জাতীয় মহিলা লীগ, অটো রিক্সা-ভ্যান লীগসহ শ্রমজীবী, পেশাজীবী সর্বস্তরের মানুষ। এমনকি ‘আল বাইয়্যিনাত’ এলাকার নির্বাচিত সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেননসহ আরো অনেক সংসদ সদস্য ‘আল বাইয়্যিনাত, দৈনিক আল ইহসান’ কার্যালয়ে এসে থাকেন এবং মুজাদ্দিদে আ’যম, রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী-এর দোয়া নিয়ে থাকেন।

 মাননীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী যদি এলাকার সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন সাহেবের সাথেও যোগাযোগ করে ‘আল বাইয়্যিনাত’ সম্পর্কে বলতেন তাহলে তিনি ভাল জবাব পেতেন।  কিন্তু তিনি যদি জামাত-জোটের করে যাওয়া গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টের ভিত্তিতেই ‘আল বাইয়্যিনাত’ সম্পর্কে জামাত-জোটের দৃষ্টিভঙ্গী দিয়ে কথা বলেন তবে তা হবে মহা সত্যের খেলাপ। এবং তাতে করে জঙ্গি-জামাতীরাই উপকৃত হবে।

এদিকে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্যে এরকম একটা হতবাক ও বিমূঢ় অবস্থার প্রেক্ষিতে সারাদেশ, সুশীল সমাজ, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি এমনকি মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ পছন্দকারী গোয়েন্দা সংস্থার তরফ থেকেও ‘দৈনিক আল ইহসান’ অফিসে অগণিত ফোন করে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে জোরালো ভূমিকা নেয়ার জন্য একান্ত অনুরোধ জানানো হয়।

তদপ্রেক্ষিতে ‘দৈনিক আল ইহসান’ ও ‘মাসিক আল বাইয়্যিনাত’ সম্পাদক এবং আঞ্জুমানে আল বাইয়্যিনাত-এর আহবায়ক আল্লামা মুহম্মদ মাহবুব আলম আরিফ বাধ্য হন মোবাইলফোনে মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে কথা বলতে, তার প্রতিক্রিয়া জানতে, সত্য উদঘাটন করতে।

মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ‘আল বাইয়্যিনাত’ সম্পর্কে তার প্রতিক্রিয়ায় গত ২৪.০৪.০৯ ঈসায়ী শুক্রবার রাত ৯.৪৫ মিনিটে ব্যক্ত করেন যে,

“জঙ্গিবাদের সাথে ‘আল বাইয়্যিনাত’-এর সম্পৃক্ততার কোন প্রমাণই নেই। কাজেই ‘আল বাইয়্যিনাত’ জঙ্গিবাদের সাথে সম্পৃক্ত- একথা বলার কোনো ভিত্তি নেই।

‘আল বাইয়্যিনাত’ জঙ্গি সংগঠন- একথা বলা আদৌ ঠিক হবে না।” এদিকে ‘মাসিক আল বাইয়্যিনাত’ ও ‘দৈনিক আল ইহসান’ যে নিয়মিত ও নিবেদিতভাবে ইসলামী দৃষ্টিকোণ থেকে

ধর্মভীরুদের মাঝে জঙ্গিবাদ, মৌলবাদ, ধর্মব্যবসায়ী বিরোধী

তীব্র লেখনী চালিয়ে প্রবল জনমত তৈরি করছে যা কিনা

ধর্মপ্রাণদের মাঝে সরকারের গৃহীত পদক্ষেপের পাশাপাশি আরো বেশি কার্যকর ও ফলদায়ক:

‘আল বাইয়্যিনাত’ ও ‘দৈনিক আল ইহসান’-এর সে অবদানকে আপনি বা আপনার সরকার কতটুকু মূল্যায়ন করছে বা করবে সে প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হেসে জবাব দেন, ‘সময়ই তা সঠিকভাবে বলে দিবে।’

এদিকে ‘আল বাইয়্যিনাত’ ও ‘দৈনিক আল ইহসান’ সম্পর্কে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ-এর বক্তব্য সম্পর্কে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল জলিল এমপি সাহেবকে

গত ২৪.০৪.০৯ ঈসায়ী শুক্রবার রাত দশটায় ফোন করা হলে তিনি নওগাঁ থেকে বলেন, ‘সোহেল তাজ-এর কাছে সঠিক তথ্য যায়নি। আমি ফোনে পেলে আজকেই তাকে বলে দিব।’

ভারতে মসজিদ মাদ্রাসা মুসলমানদের ঘর ভাঙ্গা, তথা শহীদ করা চলছেই নাউযুবিল্লাহ! শত বৎসর থেকে হাজার বৎসরের পুরানো মসজিদও আমলে নেয়া হচ্ছে না নাউযুবিল্লাহ! তথাকথিত ধর্মনিরপেক্ষবাদী ভারতে মুসলিম নির্যাতনের  বিরুদ্ধে সরকারের ও জনগণের শক্ত প্রতিবাদ করা দরকার

যুগের আবূ জাহিল, মুনাফিক ও দাজ্জালে কায্যাবদের বিরোধিতাই প্রমাণ করে যে, রাজারবাগ শরীফ-এর হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী হক্ব। খারিজীপন্থী ওহাবীদের মিথ্যা অপপ্রচারের দাঁতভাঙ্গা জবাব-৫৩

চাঁদ দেখা ও নতুন চন্দ্রতারিখ নিয়ে প্রাসঙ্গিক আলোচনা-১৯

ব্রিটিশ গুপ্তচরের স্বীকারোক্তি ও ওহাবী মতবাদের নেপথ্যে ব্রিটিশ ভূমিকা-৫০

বাতিল ফিরক্বা ওহাবীদের অখ্যাত মুখপত্র আল কাওসারের মিথ্যাচারিতার জবাব-১৬ হাদীছ জালিয়াতী, ইবারত কারচুপি ও কিতাব নকল করা ওহাবীদেরই জন্মগত বদ অভ্যাস ওহাবী ফিরক্বাসহ সবগুলো বাতিল ফিরক্বাহ ইহুদী-নাছারাদের আবিষ্কার! তাদের এক নম্বর দালাল