মুবারক হো- হাদিউল উমাম, বাবুল ইলম, কুতুবুল আলম, জামিউল আলক্বাব, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা হযরত শাহদামাদ ছানী হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার মুবারক বিলাদত শরীফ

সংখ্যা: ২৩২তম সংখ্যা | বিভাগ:

সব প্রশংসা খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য। সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি অফুরন্ত ছলাত মুবারক ও সালাম মুবারক।

মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হে আমার হাবীব নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আপনি (স্বীয় উম্মতদেরকে) বলে দিন, মহান আল্লাহ পাক তিনি স্বীয় ফদ্বল ও রহমত স্বরূপ অর্থাৎ অপার দয়া ও অনুগ্রহ হিসেবে উনার প্রিয়তম রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে পাঠিয়েছেন; সে জন্য তারা যেন খুশি প্রকাশ করে। এই খুশি প্রকাশের আমলটি তাদের সমস্ত নেক আমল অপেক্ষা উত্তম বা শ্রেষ্ঠ।”

এই খুশি প্রকাশের দিক বহুমাত্রিক। তন্মধ্যে একটি বিশেষ দিক হলো মহিমান্বিত ৯ই জুমাদাল ঊলা আখা”ছুল খাছ আওলাদে রসূল, কুতুবুল আলম, নকশায়ে যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম, সাইয়্যিদুনা হাদিউল উমাম আলাইহিস সালাম উনার পবিত্র বিলাদত শরীফ উপলক্ষে স্বতঃস্ফূর্তভাবে, অব্যক্ত আবেগে, ভাষাহীন উচ্ছাসে, চরম-পরম শান-শওকত ও ব্যাপক জওক-শওক সহকারে উনার বিলাদ শরীফ দিবসটি পালন করা।

বলাবাহুল্য, খলীফাতুল উমাম, কুতুবুল আলম, জামিউল আলক্বাব, মুজাদ্দিদে আ’যমে ছানী আলাইহিস সালাম উনার মহিমান্বিত বিলাদত শরীফ ৯ই রমাদ্বান শরীফ উনার অনুসরণে ৯ই জুমাদাল ঊলা শরীফও আলাদাভাবে বৈশিষ্ট্যমণ্ডিত ও ফযীলতপ্রাপ্ত হয়েছে। সুবহানাল্লাহ!

উল্লেখ্য, মহান আল্লাহ পাক তিনিই সব প্রানের মালিক। কিন্তু তাদের জান কবজ করার দায়িত্ব হযরত আজরাঈল আলাইহিস সালাম উনাকে এবং রিযিক ও বৃষ্টি বর্ষণের দায়িত্ব হযরত মীকরাঈল আলাইহিস সালাম উনাকে মহান আল্লাহ পাক তিনি দিয়েছেন। অনুরূপ পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “প্রত্যেক যুগে ৭ জন কুতুবুল আলম থাকবেন। উনাদের উসীলায় পৃথিবী রক্ষা হবে, বৃষ্টি বর্ষণ হবে, মানুষ রিযিক পাবে।”

সঙ্গতকারণেই তা বলতে হয়, পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে উল্লিখিত এই ৭ জন কুতুবুল আলম উনাদের খুঁজে নেয়া, ছোহবত মুবারক-এ যাওয়া, খিদমত করা উম্মাহর জন্য ফরয ওয়াজিব। এবং কেবলমাত্র উনাদের সুপারিশ ও দোয়া মুবারক-এ মানুষ ও পৃথিবী সব ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা পেতে পারে।

এ উম্মাহর সৌভাগ্য যে, একসাথে ৭ জন কুতুবুল আলম উনারা বসবাস মুবারক করছেন এই বাংলাদেশে রাজারবাগ শরীফ-এ।

অনিবার্য কারণেই উনাদের সম্পর্কে অবগত হওয়া ও উনাদের প্রতি নিবেদিত হওয়া বাংলাদেশসহ গোটা বিশ্বের সব মুসলমানদের জন্য ফরয-ওয়াজিব।

খুবই দুঃখের সাথে বলতে হয়, কাফির বিশ্বের পাশাপাশি মুসলমানরাও আজ সারা বিশ্বে লিঙ্কনবাদ, পূঁজিবাদ, মার্কসবাদ, লেলিনবাদ তথা ডারউইন থেকে স্টিফেন হকিং বিবৃত ডাহা ভুল ও মিথ্যা তথ্যগুলো পর্যন্ত লুফে নেয়। রপ্ত করে। আওড়ায়। (নাঊযুবিল্লাহ)

কিন্তু অনেক মুসলমানই জানে না- বর্তমান হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের পবিত্র বিলাদত শরীফ উনার তারিখ। যেমন জানে না ৯ জুমাদাল উলা শরীফ কুতুবুল আলম, হাদিউল উমাম, বাবুল ইলম, সাইয়্যিদুনা হযরত শাহদামাদ ছানী ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার সুমহান বিলাদত শরীফ উনার দিন।

যিনি ইমামুল আইম্মাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, হাবীবুল্লাহ আওলাদে রসূল, মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম ও উম্মুল উমাম, ক্বায়িম-মাক্বামে উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম এবং খলীফাতুল উমাম, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যমে ছানী, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তথা আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের শাহদামাদ আলাইহিমাস সালাম। (সুবহানাল্লাহ)

সর্বোপরি যিনি নিবরাসাতুল উমাম, লখতে জিগারে মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম, ক্বায়িম-মক্বামে হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম, কুতুবুল আলম, হযরত শাহযাদীয়ে ছানী ক্বিবলা আলাইহাস সালাম উনার খিদমতে নিয়োজিত উনার জাওযুল মুকাররম।

মূলত, উনি পবিত্র বিলাদত শরীফ উনার পূর্বকাল থেকেই বেমেছালভাবে মহান আল্লাহ পাক ও উনার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের কাছে আলাদাভাবে মনোনীত, কবুলকৃত। (সুবহানাল্লাহ)। উনার বেমেছাল বুযূর্গী মুবারক। বেমেছাল উনার ফযীলত মুবারক। উনার বেমেছাল তাক্বওয়া মুবারক। উনার বেমেছাল তায়াল্লুক মুবারক। উনার বেমেছাল নিসবত মুবারক। উনি বেমেছালভাবে সন্তুষ্টিপ্রাপ্ত। এবং পাশাপাশি বেমেছালভাবে নিবেদিত। সেই সাথে রাজারবাগ শরীফ উনার মুরীদান তথা উম্মাহ উনার তরফ থেকে বেমেছাল রহমত মুবারক, বরকত মুবারক, ও ফযীলত মুবারক প্রাপ্ত হয়েছ।

সঙ্গতকারণেই এই সুমহান বিলাদত শরীফ উনার তাৎপর্য, গুরুত্ব, মহত্ত্ব, শান-শওকত লেখার জন্য কোনো ভাষার শুরু এবং শেষ যেমন নেই তেমনি বিলাদত শরীফ পালনের ব্যাপকতার, ঘনঘটার, শান-শওকতেরও তথা সমন্বিত আয়োজনেরও কোনো পরিশেষ নাই। সবকিছুই এখানে ব্যর্থ। সস্পৃক্ত শুধুই অক্ষমতা প্রকাশ। অনিবার্য এখানে ক্ষমা প্রার্থনা।

বলার অপেক্ষা না রেখে আমরাও তাই এই সুমহান বিলাদত শরীফ প্রসঙ্গে আমাদের সব অক্ষমতার ভারে প্রথমেই করছি শেষ স্তরের ক্ষমা প্রার্থনা। নিবেদন করছি সমগ্র সত্ত্বার নিংড়ানো নিবেদিত মুহব্বত ও শেষ স্তরের আত্মসমর্পণ।

উনাদের আগমন, আবির্ভাব, সুমহান বিলাদত শরীফই যমীনবাসীর জন্য সবচেয়ে বড় রহমত, বরকত তথা ঈদ বা সাইয়্যিদে ঈদে আ’যম উনার শামিল।

সঙ্গতকারণেই বলতে হয়, আজকের এ ঈদে আ’যম উনার, ঈদে বিলাদতে হাদিউল উমাম হযরত শাহদামাদ ক্বিবলা ছানী আলাইহিস সালাম উনার মুবারক পরিসর কেবল রাজারবাগ শরীফ অথবা রাজারবাগ শরীফ উনার সিলসিলাভুক্ত পরিমন্ডলেই পরিশেষ হবার নয়।

বরং অনিবার্য কারণেই তথা নিজস্ব প্রয়োজনেই গোটা বিশ্বপরিসরেই উনার পর্যালোচনা করতে হবে। গোটা বিশ্বব্যাপীই এই সুমহান বিলাদত শরীফ ব্যাপক শান-শওকত ও জওক-শওক তথা যথাযোগ্য ভাবগাম্ভীর্য এবং সর্বশেষ প্রচেষ্টার প্রতিফলন ঘটিয়ে পালন করতে হবে। এবং দিন দিন উত্তরোত্তর এটার ব্যাপকতা বিস্তর বিস্তার ঘটাতে হবে ইনশাআল্লাহ।

সাধারণ মানুষকে বোঝাতে হবে তারা ‘সেলিব্রেটি’, ‘তারকা’, ‘আবেদনময় পুরুষ’ ইত্যাদি যেসব অনৈসলামী ব্যক্তিদের পিছনে ছুটছে, তাদেরকে মুহব্বত করছে, তাদের আলোচনায় মত্ত থাকছে, তাদের ভক্ত বলে প্রচার করছে; এরা সবাই হবে তাদেরকে জাহান্নামে নিয়ে যাওয়ার ইমাম। পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “ক্বিয়ামত উনার দিন প্রত্যেক মানুষকে তাদের ইমামসহ ডাকা হবে।” বলাবাহুল্য, আজকের সিনেমা থেকে খেলার সেলিব্রেটি তথা তারকা সবাই জাহান্নামী হওয়ার আমল করছে। এবং সেই সাথে যাবে তাদের অন্ধ অনুসারী ভক্তও। (নাঊযুবিল্লাহ)

আমাদের মনে রাখতে হবে যে, এসব সেলিব্রেটি তারকারা সবাই জাহান্নামের কীট হওয়ার কোশেশে মশগুল। পক্ষান্তরে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমাদের মধ্যে ওই ব্যক্তি বেশি সম্মানিত যে বেশি পরহিযগার।” পবিত্র এ আয়াত শরীফ উনার আলোকে- হাদিউল উমাম হযরত শাহদামাদ ক্বিবলা ছানী আলাইহিস সালাম তিনি যে কত বেশি সম্মানিত তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হে আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি জানিয়ে দিন, আমি তোমাদের নিকট কোনো বিনিময় চাচ্ছিনা না। আর চাওয়াটাও স্বাভাবিক নয়; তোমাদের পক্ষে দেয়াও কস্মিনকালে সম্ভব নয়। তবে তোমরা যদি ইহকাল ও পরকালে হাক্বীক্বী কামিয়াবী হাছিল করতে চাও; তাহলে তোমাদের জন্য ফরয-ওয়াজিব হচ্ছে- আমার হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করা, তা’যীম-তাকরীম মুবারক করা, উনাদের খিদমত মুবারক উনার আনজাম দেয়া।” (পবিত্র সূরা শুরা শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ২৩)

এসব পবিত্র আয়াত শরীফ থেকে প্রত্যেক ঈমানদার মুসলমানসহ কায়িনাতের সকলের জন্যই উপলব্ধি করা জরুরী যে, মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার মহাসম্মানিত হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের বিলাদত শরীফ তথা বিছাল শরীফ সংশ্লিষ্ট প্রতিটি বিষয়ই উম্মতের তথা কায়িনাতের জন্য বেমেছাল ফযীলত মুবারক, ইতমিনান মুবারক, রহমত মুবারক হাছিল এবং নিয়ামত মুবারক হাছিলের কারণ।

মূলত, এর উপরই নির্ভর করবে ভক্ত মুরীদ-মুতাক্বিদ, আশিকীন-মুহেব্বীন বিশেষতঃ আনজুমানে আল বাইয়্যিনাত তথা আন্তর্জাতিক আল বাইয়্যিনাত উনার মূল্যায়ন অথবা অর্জিত সফলতা বা ব্যর্থতা।

খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদের সবাইকে উনার নেক ছোহবত মুবারক, নিয়ামত মুবারক ও নেক সন্তুষ্টি মুবারক নছীব করুন। (আমীন)

-আল্লামা মুহম্মদ ওয়ালীউল্লাহ।

যুগের আবূ জাহিল, মুনাফিক ও দাজ্জালে কায্যাবদের বিরোধিতাই প্রমাণ করে যে, রাজারবাগ শরীফ-এর হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী তিনি হক্ব। খারিজীপন্থী ওহাবীদের মিথ্যা অপপ্রচারের দাঁতভাঙ্গা জবাব-৮১

ভ্রান্ত ওহাবী মতবাদ প্রচারের নেপথ্যে-৩০

চাঁদ দেখা ও নতুন চন্দ্রতারিখ নিয়ে প্রাসঙ্গিক আলোচনা-৪৯

আমীরুল মু’মিনীন হযরত সাইয়্যিদ আহমদ শহীদ বেরলভী আলাইহিস সালাম তিনি নিঃসন্দেহে আল্লাহ পাক উনার খাছ ওলী উনার প্রতি অপবাদকারী জালিম গং নিঃসন্দেহে বাতিল, গুমরাহ, লানতপ্রাপ্ত, জাহান্নামী ও সুন্নী নামের কলঙ্ক  রেজাখানীরা আয়নায় নিজেদের কুৎসিত চেহারা দেখে নিক ॥ ইসলামী শরীয়ার আলোকে একটি দলীলভিত্তিক পর্যালোচনা-২

গোটা দেশবাসীকে সম্পূর্ণ অবহিত করে ট্রানজিট চুক্তি না করলে এবং দেশবাসীর সম্মতিতে না করলে কথিত ট্রানজিট চুক্তি হবে দেশবাসীর সাথে সম্পূর্ণ বিশ্বাসঘাতকতা করে দেশ বিক্রির শামিল যা সম্পূর্ণ অসাংবিধানিক এবং অগ্রহণযোগ্য